প্রস্তুতি ভালোই হলো তামিম-মুমিনুলদের

আপডেট: মার্চ ৩, ২০১৭, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



শেষ বিকালে হঠাৎ ঝড়ো হাওয়া, আকাশ ঢেকে গেল ঘন কালো মেঘে। দিনের শেষ ঘণ্টায় খেলা হওয়া নিয়ে শঙ্কা। শেষ পর্যন্ত এলো না বৃষ্টি, বাংলাদেশ ব্যাটিং করলো পুরো ৯০ ওভার।
তামিম ইকবালের শতক আর মুমিনুল হক-লিটন দাসের অর্ধশতকের ওপর ভর করে প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটে ৩৯১ রান করেছে বাংলাদেশ।
শ্রীলঙ্কা সফরে মাঠে প্রথম দিনটি খারাপ কাটে নি চন্দিকা হাথুরুসিংহের শিষ্যদের। সৌম্য সরকার ছাড়া টপ অর্ডারের বাকি দুই ব্যাটসম্যানই রান পেয়েছেন। খোঁচা মেরে ক্যাচ দেওয়া সৌম্যর দ্রুত বিদায়ের পর জুটি বাধা তামিম-মুমিনুলের কেউই আউট হন নি।
দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানই মাঠ ছাড়েন স্বেচ্ছায়। ইতিবাচক ব্যাটিং করা মুমিনুল ৭৪ বলে অর্ধশতক ছুঁয়ে অবসর নেন ৭৩ রান করে। কখনও মাটি কামড়ে পড়ে থাকা, কখনও পাল্টা আক্রমণে চড়াও হওয়া তামিম ক্রিজে ছিলেন দুই সেশন। ১৮২ বলে খেলা তার ১৩৬ বলের ইনিংসটি ৭টি ছক্কা ও ৯টি চারে সাজানো।
মুমিনুল মাঠ ছাড়ার পর ক্রিজে আসেন মুশফিকুর রহিম। ছন্দে থাকা এই ব্যাটসম্যানের ওপর ছয় নম্বরে না নেমে ওপরে খেলার চাপ বহুদিনের। মাহমুদউল্লাহর জায়গায় ব্যাটিংয়ে নেমে ৩৭ বলে দুটি চারে ফিরেন ২১ রান করে। এই সময়েই তামিমের সঙ্গে গড়েন ৭৫ রানের জুটি।
মুশফিকের মতো সাকিব আল হাসান ও মাহমদুউল্লাহও থিতু হয়ে আউট হওয়ায় দিনটি পুরোপুরি তৃপ্তিতে কাটে নি বাংলাদেশের। স্বভাবসুলভ আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেননি বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব। শট খেলার ব্যাপারেও সতর্ক ছিলেন তিনি। চেষ্টা করেছেন উইকেটের চার পাশে খেলার।
ছয় নম্বরে যাওয়া মাহমুদউল্লাহর মধ্যেও ছিল একই প্রচেষ্টা। থিতু হওয়ার পর শটও খেলেন ছন্দে ফেরার লড়াইয়ে থাকা এই মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান। চামিকা করুনারতেœর স্টাম্পের বাইরের বল তাড়া করতে গিয়ে কট বিহাইউন্ড হয়ে ফিরেন মাহমুদউল্লাহ।-বিডিনিউজ