প্রাইম ব্যাংকের নাটকীয় জয়

আপডেট: মে ১৭, ২০১৭, ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জয়ের জন্য শেষ চার বলে ৪ রানের সমীকরণ মেলাতে পারেনি ব্রাদার্স ইউনিয়ন। আরিফুল হকের দারুণ বোলিংয়ে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ১ রানের নাটকীয় জয় পেয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। শেষ ওভারে ব্রাদার্সের দরকার ছিল ১১ রান। প্রথম বলে এক রান নিয়ে প্রান্ত বদল করেন ধীমান ঘোষ। পরের বলে ছক্কা হাঁকিয়ে সমীকরণ সহজ করে ফেলেন নিহাদউজ্জামান।
তৃতীয় বলটি ডট, পরের বলে আসে দুই রান। পঞ্চম বলটি আবার ডট। ষষ্ঠ বলে উড়ানোর চেষ্টায় নিহাদউজ্জামান ধরা পড়েন তাইবুর রহমানের হাতে। হারতে বসা ম্যাচে দারুণ এক জয় পায় প্রাইম ব্যাংক। ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে প্রাইম ব্যাংকের সপ্তম জয়। অন্য দিকে ব্রাদার্সের ষষ্ঠ পরাজয়। বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে সোমবার বৃষ্টির জন্য ম্যাচের দৈর্ঘ্য নেমে আসে ৪৩ ওভারে। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ২৪৯ রান করে প্রাইম ব্যাংক। জবাবে ৮ উইকেটে ২৪৮ রানে থেমে যায় ব্রাদার্সের ইনিংস। লক্ষ্য তাড়ায় শুরুতে ব্রাদার্সকে পথ দেখান জুনায়েদ সিদ্দিক। বাঁহাতি এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ৬টি চারে ৬৭ বলে করেন ৫১ রান। মাঝে দলকে টানেন অলক কাপালী, মানভিন্দর বিসলা ও মাইশুকুর রহমান। ৪৮ বলে ৬টি চারে কাপালী ফিরেন ৪৬ রানে। ৪৭ বলে তিনটি করে ছক্কা-চারে বিসলা খেলেন ৫৭ রানের চমৎকার এক ইনিংস। মাইশুকুর বিদায় নেন ৪৫ বলে ৩৬ রান করে।
শেষে নায়ক হওয়ার সুযোগ এসেছিল নিহাদউজ্জামানের সামনে। পারেননি তিনি। অসাধারণ এক শেষ ওভারে ব্রাদার্সের জয় কেড়ে নিয়েছেন অলরাউন্ডার আরিফুল। এর আগে মেহেদী মারুফের অর্ধশতকে শুরুটা ভালো হয় প্রাইম ব্যাংকের। ৬টি চার ও দুটি ছক্কায় অধিনায়ক ফিরেন ৫৮ রান করে। ৭০ রানের উদ্বোধনী জুটির পর ৮৮ রানে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে প্রাইম ব্যাংক। চতুর্থ উইকেটে জাকির হাসানের সঙ্গে অভিমন্যু ঈশ্বরণের ১১২ রানের জুটিতে ধাক্কা সামাল দেয় দলটি। ৫০ বলে ৬টি চারে ৫২ রান করে ফিরেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান জাকির। তার বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টিকেননি ঈশ্বরণ। ৬৮ বলে ৫টি চার ও একটি ছক্কায় ফিরেন ৭০ রান করে। দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেওয়া এই ইনিংসে জেতেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।  বাঁহাতি স্পিনার নিহাদউজ্জামান ৩ উইকেট নেন ৪৯ রানে। লেগ স্পিনে অধিনায়ক কাপালী ২ উইকেট নেন ৩৩ রানে। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ