প্রাণিসম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার ও উন্নয়ন করে দ্রুত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি সম্ভব।। সেমিনারে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

আপডেট: জুন ১৬, ২০১৭, ১:০৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


সেমিনারে বক্তব্য দেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ -সোনার দেশ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমপি বলেছেন, প্রাণিসম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার ও উন্নয়ন করে দ্রুত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি লাভ করা সম্ভব। এ খাতের অপার সম্ভবনাকে কাজে লাগিয়ে সরকার দারিদ্র বিমোচন ও আত্মকর্মস্থান সৃষ্টির পরিকল্পনা নিয়েছে।
তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নানকিং দরবার হলে ‘দেশি ভেড়ার উন্নয়ন ও ভেড়াজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি এবং উৎপাদিত পণ্যের বাজার সৃষ্টিতে করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির ভাষণ দিচ্ছেলেন।
তিনি বলেন, বাংলাদেশে ভেড়া উৎপাদন ও এর জাত উন্নয়নে যথেষ্ট সম্ভাবনা ও সুযোগ রয়েছে। এর প্রসার ঘটাতে ব্যাপক প্রচার প্রচারণার প্রয়োজন আছে। ভেড়া পালন ও এর বাজার সৃষ্টিতে যে সব সমস্যা রয়েছে সে গুলো সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হবে। টেকসই উন্নয়নের জন্য শুধু ভেড়ার লালন-পালনই যথেষ্ট নয়Ñ এর জাত উন্নয়নেও গভীর মনোযোগ দিতে হবে।
সমাজভিত্তিক ও বাণিজ্যিক খামারে দেশি ভেড়ার উন্নয়ন ও সংরক্ষণ (কম্পোনেস্ট) ২য় পর্যায় প্রকল্প ও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন, জেলা প্রশাসক মো. হেলাল মাহমুদ শরীফ। সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব কাজী ওয়াছিউদ্দীন, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগের উপপরিচালক ডা. মো. রেজাউল ইসলাম, রংপুর বিভাগের উপপরিচালক মাহবুবুর রহমান।
সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন, প্রকল্প পরিচালক কৃষিবিদ হাবিবুর রহমান। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা কল্যাণ কুমার ফৌজদার। প্রবন্ধের ওপর আলোচনায় অংশ নেন,পশুসম্পদ অধিদপ্তরের উপপরিচালক (কৃত্রিম প্রজনন ও ঘাস উৎপাদন) ড. মো. মিজানুর রহমান, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা বগুড়া আখম শফিউজ্জামান প্রমূখ।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুগ্মসচিব কাজী ওয়াছিউদ্দীন বলেন, প্রাণিসম্পদ উন্নয়নে সমন্বয়হীনতা আছে ফলে আমরা কাঙিক্ষত ফল পাচ্ছি না। প্রাণিসম্পদ উন্নয়নে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করতে পারলে ভেড়া উন্নয়নের ক্ষেত্রকে সাধারণের মধ্যে উৎসাহিত ও সম্প্রসারিত করা সম্ভব হবে। প্রাণিসম্পককে গুরুত্ব দিয়েই আমরা দ্রুত মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হতে পারিÑ ২০২১ সালের লক্ষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে না।
সেমিনারে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, পশু চিকিৎসক, খামারি, মাংস বিক্রেতা, সাংবাদিক, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা এবং জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
গোদাগাড়ীর খামারি হাবিবা খাতুন ও মাংস বিক্রেতা আব্দুর রশিদ সেমিনারে বক্তব্য রাখেন। খামারিরা ভেড়া উৎপাদনে তাদের সাফল্যগাথা তুলে ধরেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ