প্রেমের টানে…

আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০১৬, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

 নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীর দুর্গাপুরের বেলঘরিয়া এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের গৃহবধু ও দুই সন্তানের জননী রিনা দাস (৩০) মুসলমান সম্প্রদায়ের দুই সন্তানের জনক মাছ ব্যবসায়ী মাহাতাব হোসেনের (৩৫) সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠেছে। পলাতক তারা দুজনই একই এলাকার বাসিন্দা। এ বিষয়ে গৃহবধু রিনা দাসের স্বামী প্রশান্ত দাস ঘটনার দিন গত ২৭ নভেম্বর বাদী হয়ে দূর্গাপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার দিন গৃহবধু তার ২ বছরে একটি শিশু সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে গেছেন বলে জানানো হয়। গৃহবধুর স্বামী ও মৃত সুনীল চন্দ্র দাসের ছেলে প্রশান্ত দাস স্থানীয় একটি সেলুনে নাপিতের কাজ করেন। এ ঘটনার পর থেকে তাদের দুজনকে খুজে পাওয়া যায়নি। এমতাবস্থায় উভয়ের পরিবার ও সন্তানরা চরম সঙ্কটাপূর্ণ এবং অসহায় অবস্থায় দিন যাপন করছেন।
গৃহবধুর স্বামী অভিযোগে বলেন, গত ২৭ নভেম্বর বেলা ১১টায় তার স্ত্রী আলীপুর বাজারে ব্রাক এনজিও অফিসে লোনের টাকা উঠাতে যায়। এজন্য সে সকাল সকাল বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু দীর্ঘক্ষণ সময় হওয়ার পরেও সে বাড়িতে না আসায় সম্ভাব্য সব জায়গায় খোজাখুজি করে। এরপর গৃহবধু রানী দাসকে খুজে না পাওয়ার ঘটনাটি শ্বশুর সুশান্ত দাসকে মোবাইলে ফোন করে জানান তিনি।
এবিষয়ে গৃহবধুর স্বামী প্রশান্ত দাস ঘটনার সতত্যা স্বীকার করে বলেন, আমার স্ত্রী মুসলমান এক বিবাহিত যুবকের সঙ্গে পালিয়ে যায়। সেসময় সে আমার দুই সন্তানের মধ্যে ২ বছরের ছোট ছেলেকে সঙ্গে করে নিয়ে যায়। এখন পর্যন্ত তাদের খুজে পাওয়া যাচ্ছে না।
এবিষয়ে বেলঘরিয়া ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মোস্তাক হোসেন বলেন, ঘটনা সত্য। তাদের দুজনেরই আগে থেকে সম্পর্ক ছিল। তারা দুজনই আমাকে ফোন করে ঘটনা স্বীকার করেছে বলে তিনি জানান।
এছাড়া দুর্গাপুর থানার সেকেন্ড অফিসার বেলাল হোসেন বলেন, এ ঘটনার বিষয়ে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ তাদের আটকের জন্য অভিযান শুরু করেছে।