‘প্লাস্টিক মেসি’ কে সঙ্গে নিয়ে মাঠে মেসি

আপডেট: ডিসেম্বর ১৫, ২০১৬, ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



প্রীতি ম্যাচ খেলতে বর্তমানে কাতারে মেসির দল বার্সেলোনা। আর আল আহলিওয়ের বিপক্ষে নিজের সঙ্গে  ‘প্লাস্টিক মেসি’ খ্যাত মুর্তাজা আহমাদিকে সঙ্গে নিয়ে মাঠে নামলেন বার্সা তারকা লিওনেল মেসি।
এই ম্যাচের আগেই আনুষ্ঠানিকভাবে দু’জনের দেখা হয়। বার্সার জাসি পরা ছয় বছরের আহমাদি একেবারে সোজা লিওনেল মেসির কোলে গিয়ে ওঠে। পরে দলের সঙ্গে আহমাদির হাত ধরে আল আহলির বিপক্ষে মাঠে নামেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী।
মেসিকে কাছে পেয়ে পুরো সময়টায় আহমাদির উচ্ছ্বাস ছিল চোখে পড়ার মতো। তাকে সঙ্গে রেখেই প্রথমে রেফারি, প্রতিপক্ষের অধিনায়ক ও পরে টিম বার্সার সঙ্গে ফ্রেমবন্দী হন মেসি। খেলা শুরুর আগে রেফারির ভূমিকায় মাঝমাঠে বলও রাখে আহমাদি।
কিছুদিন আগে একটি প্লাস্টিকের ব্যাগ কেটে মেসির আর্জেন্টিনার জার্সি পরে পিঠে মেসির নাম এবং ১০ নম্বর লাগিয়ে ছবি তুলেছিলেন সেই বিস্ময় বালক। সেই প্লাস্টিকের জার্সি পরে ফুটবল খেলার ছবিও তুলেছিল বালকটি। তার বড় ভাই সেই ছবিগুলো আপলোড করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল তা। তোলপাড় পড়ে গিয়েছিল সারাবিশ্বে। অবশেষে খুঁজে বের করা হয়, মেসির এই ক্ষুদে ভক্ত আফগানিস্তানের। ওই সময় এতো তোলপাড় হয়েছিল যে, তার নামই দেয়া হয়েছিল ‘প্লাস্টিক মেসি’ নামে।
আফগানিস্তানের যুদ্ধবিধ্বস্ত অঞ্চলে দারিদ্র্যের মধ্যে বেড়ে ওঠা শিশু আহমাদি। জীবন বাঁচাতে যে মা-বাবার সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছিল পাকিস্তানে। আসল জার্সি কেনার সামর্থ্য নেই বলে পলিথিনের ব্যাগ দিয়ে তৈরি করে নিয়েছিল মেসির জার্সি। এই ভালোবাসা দেখে আবেগে ভেসেছে মেসি নিজেও।
মেসি নিজে শিশুটিকে ডেকে নিতে চেয়েছিলেন বার্সেলোনায়। ভিসা-জটিলতার কারণে তখন তা সম্ভব হয় নি। পরে ইউনিসেফ আফগানিস্তানের মাধ্যমে মেসি দুটি জার্সি ও কিছু ফুটবল উপহার পাঠান বালকটির কাছে। এবার আরব আমিরাতের দোহায় প্রীতি সফরে আসলে সেখানেই আহমাদিকে ডেকে নেন মেসি। বার্সেলোনার জার্সি পরে মেসির কাছে ছুটে গেলো বালকটি। শুধু ছুটে যাওয়াই নয়, এক লাফে উঠে গেলো তার কোলে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ