ফল বিপর্যয়ের সমাধান চেয়ে রাবিতে শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন আশ্বাসে স্থগিত

আপডেট: ডিসেম্বর ৫, ২০২২, ১১:১৬ অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক:


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উর্দু বিভাগের পরীক্ষার ফল বিপর্যয়ের সমাধান চেয়ে আমরণ অনশনে বসেছেন ওই বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসনিক ভবনের সামনে অনশন শুরু করেন তারা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দফায় দফায় তাদের আশ্বাস দিয়েও আন্দোলন স্থগিত করতে ব্যর্থ হয়। পরে সোমবার রাত সাড়ে ৮টায় তদন্ত কমিটি গঠন ও উপাচার্যের আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত করে শিক্ষার্থীরা।
এর আগে, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত লাগাতার আন্দোলনের হুশিয়ারি দেয় তারা। দিনব্যাপী এই অনশন কর্মসূচিতে ৫ জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা অসুস্থ শিক্ষার্থীদের তাৎক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্র নিয়ে যায়।

অনশনরত মো. শরীফুর রহমান নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ১০ থেকে ১২ বার আশ্বাস দিয়েও আমাদের ফল বিপর্যয়ের সমাধান দিতে পারেননি। এ নিয়ে নভেম্বর পর্যন্ত সময় নিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু এখন ডিসেম্বর। এ কারণে আমরা আমরণ অনশনে বসেছি। আমরা সমাধান নিয়ে তবেই বাসায় ফিরব।

একই বিভাগের সুরাইয়া আক্তার বলেন, পরীক্ষার আগে নানাভাবে আমাদের মানসিক নির্যাতন করা হয়েছিল। কিন্তু সেটা যে পরীক্ষার ফলাফলে প্রভাব পড়বে আমরা সেটা ভাবিনি। ফলে আমরা ফল প্রকাশের পর প্রাপ্য ফলাফল পাইনি। আমাদের যতক্ষণ না পর্যন্ত প্রাপ্য ফলাফল ফিরিয়ে দেবে ততক্ষণ আমরা এই অনশন থাকব।

উর্দু বিভাগের পরীক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মো. নাসির উদ্দিন বলেন, তাদের ফলাফল প্রাতিষ্ঠানিকভাবে প্রকাশিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতিমালা ও বিভাগের নীতিমালা অনুযায়ী একবার ফলাফল প্রকাশিত হলে সেটা আর পরিবর্তন হয় না। এটা তারা কেন বুঝছে না সেটা বুঝি না।

শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, আমরা বিভাগ সংক্রান্ত বিষয়ে সরাসরি হস্তক্ষেপ করতে পারি না। যতদ্রুত সম্ভব তদন্ত কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী আমরা পদক্ষেপ গ্রহণ করবো। এসময় তিনি পানি পান করিয়ে শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙান।

এর আগে উর্দু বিভাগের ২০১৯-২০ সেশনের শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ফল প্রকাশের পর কাক্সিক্ষত ফল না পেয়ে ওইদিনই শিক্ষার্থীরা সভাপতির কক্ষে তালা ঝুলিয়ে ফল পুনর্মূল্যায়নের দাবি জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ