ফাইনালের আগে বন্ধুত্ব সরিয়ে রাখছেন হিগুয়াইন

আপডেট: মে ৩১, ২০১৭, ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


পুরনো ক্লাব ও সাবেক সতীর্থদের বিপক্ষে লড়াইয়ের আগে কিছুটা আবেগ ছুঁয়ে যাচ্ছে গনসালো হিগুয়াইনকে। সের্হিও রামোসের সঙ্গে তো বন্ধুত্ব আজও অটুট। তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের মুখোমুখি হওয়ার আগে সব ভুলে যাচ্ছেন ইউভেন্তুসের এই স্ট্রাইকার।
আগামী শনিবার কার্ডিফের ফাইনালে জিতলে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা ধরে রাখার নজির গড়বে রিয়াল। ইউভেন্তুস এই শিরোপা শেষবার জিতেছিল সেই ১৯৯৬ সালে।
ক্যারিয়ারে শুরুরদিকে সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে সাত বছর কাটিয়েছেন হিগুয়াইন। তবে কখনও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ট্রফি ছোঁয়া হয়নি তার। এবার সে স্বপ্ন পূরণ করতে চান ২৯ বছর বয়সি এই ফরোয়ার্ড।
হিগুয়াইন মানছেন, ম্যাচটি রিয়ালের সঙ্গে হওয়ায় এটা তার মধ্যে বাড়তি উত্তেজনা জাগাবে। রামোসের সঙ্গে বন্ধুত্বের বিষয়টিও প্রভাব ফেলবে। ২০১৪ ও ২০১৬ সালের ফাইনালে আতলেলিকা মাদ্রিদের জালে গোল করা স্প্যানিশ এই ডিফেন্ডারই হয়তো আগামী শনিবারের শিরোপা লড়াইয়ে স্ট্রাইকার হিগুয়াইনের সরাসরি প্রতিপক্ষ হবেন।
সেমিফাইনালে মোনাকোর জালে জোড়া গোল করা হিগুয়াইন বলেন, “আশা করি, রামোস এবার ৯০তম মিনিটে গোল করবে না।”
“তার ও তার পরিবারের প্রতি আমার অনেক ভালোবাসা। আমরা এখনও একে অপরকে বার্তা পাঠাই।”
“ফুটবল কখনও কখনও আপনাকে এরকম পরিস্থিতির সামনে দাঁড় করাবে; যেমন আমি রিয়াল মাদ্রিদের মুখোমুখি হবো।” “লড়াইটা সমানে সমান হবে। আমার মনে হয়, খুব কঠিন একটি ম্যাচ হবে- তারা এ ধরনের ম্যাচ খেলতে অভ্যস্ত।”
চলতি মৌসুমে এরই মধ্যে সেরি আ ও ইতালিয়ান কাপ জিতেছে ইউভেন্তুস। এবার ছাতছানি ক্লাবের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ‘ট্রেবল’ জেতার।-বিডিনিউজ