ফের নামবদলের ‘রাজনীতি’ বিজেপির, এবার মধ্যপ্রদেশের হোশাঙ্গাবাদ হল নর্মদাপুরম

আপডেট: জানুয়ারি ৩০, ২০২৩, ১২:৩০ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


রাষ্ট্রপতি ভবনের মোঘল গার্ডেনের নাম বদলে করা হয়েছে অমৃত উদ্যান। যা নিয়ে বিতর্ক চলছে। অভিযোগ উঠছে, দেশ থেকে ইসলামিক সংস্কৃতি মুছে ফেলার চেষ্টা করছে সরকার। আর তাই শুরু হয়েছে নামবদলের রাজনীতি। এবার একটি বড় পদক্ষেপ করল মধ্যপ্রদেশের সরকার। রাজ্যের হোশাঙ্গাবাদ স্টেশনের নাম বদলে করে দেওয়া হল নর্মদাপুরম। এটাই এই শহরের প্রাচীন নাম।

পশ্চিম কেন্দ্রীয় রেলওয়ে তথা ডবলিউসিআরের তরফে এমনই পদক্ষেপ করা হয়েছে। শনিবারই এই সম্পর্কে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। সেখানেই এই পরিবর্তনের কথা বলা হয়েছে। তবে এখন এই বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হলেও সিদ্ধান্ত কিন্তু হয়ে গিয়েছিল প্রায় এক বছর আগে। ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে কেন্দ্র এই পরিবর্তনের কথা ঘোষণা করেছিল।

প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রদেশের (গধফযুধ চৎধফবংয) রাজধানী ভোপাল থেকে ৭৫ কিমি দূরে অবস্থিত হোশাঙ্গাবাদ। কয়েক দিন আগেই রাজ্য সরকারের তরফে একটি গেজেট প্রকাশ করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল কেন্দ্র এই পরিবর্তনে কোনও আপত্তি জানায়নি। তখন থেকেই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল এই পরিবর্তন স্রেফ সময়ের অপেক্ষা। অবশেষে জারি হল বিজ্ঞপ্তি।

শনিবার রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর ডেপুটি প্রেস সচিব নবিকা গুপ্ত এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছিলেন স্বাধীনতার ৭৫ বছর উপলক্ষে দেশ ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’ পালন করছে। এর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই রাষ্ট্রপতি এই উদ্যানটির নাম অমৃত উদ্যান রাখছেন।

উল্লেখ্য, এর আগে বহু রাস্তা, ইমারত, জায়গা এমনকী রেল স্টেশনের নামও বদলেছে মোদি সরকার। এর অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ইসলামিক সংস্কৃতি মুছে ফেলার অভিযোগ উঠেছে।

সে মোঘলসরাই স্টেশনের নাম দীনদয়াল উপাধ্যায় করাই হোক, বা এলাহাবাদের নাম প্রয়াগরাজ করাই হোক। এক্ষেত্রেও সেই একই অভিযোগে সরব বিরোধীরা। এবার সামনে এল মধ্যপ্রদেশের বিজেপি সরকারের হোশাঙ্গাবাদের নাম পরিবর্তন করার বিষয়টিও।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ