ফেসবুক লাইভে জঘন্য অপরাধ

আপডেট: মার্চ ২৩, ২০১৭, ১২:২২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ফেসবুকে লাইভ ভিডিও প্রচার সুবিধার অপব্যবহার বেড়েই চলেছে। মাস খানেক আগে সুইডেনে এক তরুণীকে গণধর্ষণের লাইভ ভিডিও ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচারের মতো জঘন্য অপরাধের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে।
যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোর ১৫ বছর বয়সি এক কিশোরীকে গণধর্ষণ এবং তা ফেসবুকে লাইভ সম্প্রচার করা হয়েছে।
শিকাগো পুলিশ জানিয়েছে, গণধর্ষণের শিকার হওয়া কিশোরী রোববার নিঁখোজ হয়েছিল এবং মঙ্গলবার তার খোঁজ মিলেছে। যৌন নির্যাতনের ঘটনায় পাঁচ-ছয় জন পুরুষ বা কিশোর জড়িত। পুলিশের মুখপাত্র অ্যান্টনি গুগলিনমি বলেন, রোববার যখন এ ঘটনা ঘটেছে তখন অন্তত ৪০ জন মানুষ ফেসবুকে তা সরাসরি দেখেছে কিন্তু তাদের মধ্যে কেউই পুলিশের কাছে তা জানায়নি।
লাইভ ভিডিও থেকে নেওয়া ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে মেয়েটির মা স্টেসি এলকিনস ঘটনা সম্পর্কে সোমবার জানতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে অবহিত করেন। স্টেসি জানান, তার মেয়ে রোববার বাসা থেকে বাইরে যাওয়ার পর আর ফিরে আসেনি। সোমবার ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ‘জঘন্য’ লাইভ ভিডিওর কিছু ছবির বিষয়বস্তু তার মেয়ে হওয়ায়, পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদের নজরে আসে।
মেয়েকে কেউ জিম্মি করে থাকতে পারে কিংবা ঘটনার দরুন মেয়ে ভীত হয়ে কোথাও লুকাতে পারে এ আশংকায় শোকে বিহবল স্টেসি সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ ও সাংবাদিকদের সহায়তা চান তাকে খুঁজে পেতে।
ঘটনার ফুটেজের ছবিতে দেখা গেছে, একদল পুরুষের যৌন নির্যাতনের মধ্যে খুবই ভীত চেহারায় রয়েছে মেয়েটি। স্টেসি বলেন, ‘আমি ওর চেহারা দেখেছি এবং ওর চেহারায় অনেক ভয় ছিল, যেভাবেই হোক আমি আমার মেয়েকে বাড়িতে ফিরে পেতে চেয়েছি।’
মঙ্গলবার কিশোরীটিকে এক পার্কের কাছে থেকে পাওয়া যায়। ভিডিও ফুটেজ ও সংশ্লিষ্ট ছবি ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সরিয়ে নিয়েছে। যে ফেসবুক পেজ থেকে গণধর্ষণের ভিডিও লাইভ করা হয়েছিল, সেই পেজটির মালিক ও ভিডিওতে থাকা ব্যক্তিদের শণাক্তে কাজ করছে পুলিশ। তথ্যসূত্র : ডেইল মেইল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ