ফোনই কাল হলো রুয়েট শিক্ষার্থী সজিবের

আপডেট: এপ্রিল ৬, ২০১৭, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীতে ট্রেনে কাটা পড়ে আরিফ আহসান সজিব (২১) নামে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) এক শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। নিহত আরিফ সিভিল বিভাগের দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি নগরীর তেরখাদিয়া এলাকায়। বাবা মাহবুবুল হোসেন পল্লী বিদ্যুতের প্রকৌশলী। গ্রামের বাড়ি রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে।
স্থানীয়রা জানান, গতকাল বুধবার রাত আটটার দিকে নগরীর কাদিরগঞ্জ গ্রেটার রোড মসজিদ রেলগেইট এলাকায় রেললাইনে সজিব কানে এয়ার ফোন লাগিয়ে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন। এসময় চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে রাজশাহীগামী একটি ট্রেন আসলেও সজিব লক্ষ্য করেন নি। পরে স্থানীয় লোকজনদের কয়েকজন তাকে সরে দাঁড়াতে বললেও তিনি শুনতে না পেলে ট্রেনে কাটা পড়েন সজিব।
সজিবের মামা মোস্তাফিজুর রহমান হিরু জানান, সজিবের বাবা মাহবুবুর রহমান সিলেট পল্লী বিদ্যুতে চাকরি করেন। মা নার্গিস ফেরদৌসী ১৫ দিন ধরে সেখানেই আছেন। সজিবদের তেরখাদিয়া এলাকায় বাড়িটির নির্মাণের কাজ চলছে। সে জন্য তারা কাদিরগঞ্জ গ্রেটার রোড মসজিদ রেল লাইনের পাশে একটি বাড়ি ভাড়া নেয়। সেখানে তারা কয়েকমাস ধরে আছেন।
তিনি আরো জানান, রেল লাইনের পাশে একটি দোকানে তেরখাদিয়ায় নির্মিত বাড়ির লোহার গ্রিল বানানোর জন্য সজিব টাকা দিয়ে লাইনের ধারে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন। এ সময় দুর্ঘটনাটি ঘটে।
রাজশাহী রেলওয়ে থানার অফিসের ইনচার্জ (ওসি) আকবর আলী জানান, আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।