ফ্লাটে বন্দি শৈশব

আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০১৬, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



শৈশব শব্দটি শুনলেই চোখের সামনে চেসে ওঠে সেই মিষ্টি মধুর স্মৃতি। যেখানে ছিল খেলার মাঠ, একঝাঁক দুরন্ত বালক কিংবা বালিকা, এ গাছ সে গাছ থেকে ফল চুরি। ছেলেবেলার স্কুল পালানো আর মায়ের বকুনি সাথে ভালোবাসা, কত আনন্দ, কত স্মৃতি। তবে এই শৈশব তার জায়গাতে থাকলেও বদলে গিয়েছে তার চারপাশ। যার ভুক্তভোগী আজকের কোমলমতি শিশুরা। যাদের শৈশব চার দেয়ালে বন্দি। তাদের কাছে শৈশব মানেই মোটা মোটা বই, ভারী ব্যাগ, গেমস খেলার জন্য কম্পিউটার আর মা বাবার মুখে রাজা-রাণীর গল্পের পরিবর্তে বন্দি জীবনের নানা শর্ত। তাদের ছেলেবেলা যেন আটকে গিয়েছে কোথাও।
একঘেয়েমি জীবনে তারা ছোট থেকেই অভ্যস্ত হয়ে উঠছে। যেখানে তাদের খেলার মাঠে ছুটে বেড়ানোর কথা সেখানে তাদের সময় কাটে টেলিভিশনে কার্টুন দেখে আর গেমস খেলে। যা শিশুর মানসিক বিকাশে বাঁধা সৃষ্টির সাথে সাথে তাকে নানা জ্ঞান অর্জন থেকে করছে বঞ্চিত। তাই শিশুকে চারদেয়ালে আটকে নয় তাকে আপনার হাত ধরে পৃথিবী দেখান। তাকে তার শৈশব ফিরিয়ে দিন। আর এই ক্ষেত্রে আপনার ছোট ছোট কিছু কাজ শিশুকে দিতে পারে একটি সুন্দর শৈশব।
বই পড়া : শিশুকে সারা দিন কম্পিউটার, ভিডিও গেইমে আর পড়াশুনায় আটকে না রেখে তাকে বই পড়ায় অভ্যস্ত করে তুলুন। এটি তার ভবিষ্যতের জন্য যেমন ভালো তেমনি তার শৈশবের ক্ষেত্রে জরুরি। ফ্লাটে বন্দি থেকে সে অনেক কিছু থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই বই হতে পারে তার সঙ্গী। তার জানার মাধ্যম। এর থেকে ভালো আর কোনো মাধ্যম হতে পারে না। ফ্লাটে বন্দি শিশুদের বন্ধু তেমন একটা থাকে না। সেই ক্ষেত্রে এই বই তার বন্ধু হয়ে তাকে সঙ্গ দিতে পারে আর দিতে পারে নির্মল এক শৈশব।
গৃহকর্মী সাথে ভালো আচরণ : আপনি আপনার শিশুকে যা শেখাবেন সে তাই শিখবে। তার সামনে গৃহকর্মীকে অসম্মান করবেন না। যতটা সম্ভব সম্মান দিয়ে কথা বলুন এবং শিশুকেও শেখান। ফ্লাটে বন্দি থাকায় শিশুদের মাঝে নৈতিকতাবোধ, কাকে কীভাবে সম্মান দিতে হবে তা কখনো কখনো গড়ে ওঠে না। যা তার শৈশবের শিক্ষার একটি অংশ। আর শৈশবের এই শিক্ষা তার সারাজীবনের অর্জন। তার ছেলেবেলা থেকেই শিশুকে সঠিক শিক্ষা দিন।
বেড়ানো : শিশুকে একটি জায়গায় আটকে রাখবেন না। তাকে ঘুরতে নিয়ে যান। নতুন নতুন জায়গায় নিয়ে তাকে নতুন নতুন জিনিস শেখান। আত্মীয় স্বজনদের সাথে পরিচিত হবার সুযোগ করে দিন। তাদের সাথে বন্ধুত্ব করার মাধ্যম হন আপনি নিজেই।
ফ্লাটে বন্দি শৈশব থেকে শিশুকে এক বারে মুক্ত করা সম্ভব নয়। তবে যতটা সম্ভব তাকে স্বাভাবিক শৈশব দেয়ার চেষ্টা করুন। তাই আপনার শিশুকে সময় দিন তাকে একটি উপহার দিন একটি সুন্দর  স্বাভাবিক, বৈচিত্রময় শৈশব ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ