বগুড়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কোপালেন আ’লীগ নেতা

আপডেট: অক্টোবর ৮, ২০১৯, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ

বগুড়া প্রতিনিধি


বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জুয়েলকে (৪০) চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছেন স্থানীয় দুই আওয়ামী লীগ নেতা। গুরুতর আহত জিয়াউল হক জুয়েলকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত জিয়াউল হক জুয়েল বলেন, দুপুর ১২টার দিকে সুলতানগঞ্জ হাটের একটি চায়ের দোকানে চা পান করতে যায়। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বগুড়া পৌরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি মোরশেদুল আলম হিরু ও সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হায়দার টিক্কা দলবল নিয়ে চাপাতি দিয়ে আমাকে কোপাতে শুরু করেন। আমি তাদের মারপিটে আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আমাকে উদ্ধার করে শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয়রা। হামলাকারীরা আমার মাথাসহ শরিরে বিভিন্ন জায়গায় চাপাতি দিয়ে কুপিয়েছে।
তিনি আরো বলেন, সুজাবাদ এলাকায় ইয়ন গ্রুপের কীটনাশক ওষুধ কারখানা থেকে টেন্ডারের মাধ্যমে প্লাস্টিক বস্তা নিয়ে ব্যবসার করছি আমি। বেশ কিছুদিন ধরে হিরু ও টিক্কা আমার ব্যবসার ভাগ চায়। এতে অস্বীকার করলে চাঁদা দাবি করে এবং বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেয় তারা। চাঁদা না দেয়ার কারণেই আমাকে কুপিয়েছে তারা।
আ’লীগ নেতা মোরশেদুল আলম হিরু বলেন, কিছুদিন আগে ইয়ন গ্রুপের টেন্ডার নিয়ে জুয়েল দলবল নিয়ে এসে হঠাৎ করে আমাকে মারধর করে। ওই ঘটনায় সুলতানগঞ্জ হাটে জুয়েলকে দেখে সেদিনের মারার কারণ জিজ্ঞাসা করলে আবারও জুয়েল আমাকে মারধর করে। এ কারণে তাকে পাল্টা কিলঘুষি মারা হয়েছে। তাকে কোপানো হয়নি।
জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাজেদুর রহমান শাহীন বলেন, দ্বন্দ্ব যা নিয়েই হোক এভাবে কোপানো ঠিক হয়নি। এর উপযুক্ত বিচার হওয়া দরকার।
শাজাহানপুর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ