বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও শেখ হাসিনার নির্দেশিত পথ ধরে এগিয়ে যাচ্ছি : খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট: মার্চ ৫, ২০২১, ৭:২২ অপরাহ্ণ

নিয়ামতপুর প্রতিনিধি


খাদ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে এ দেশ স্বাধীন হতো না, আমরা দেশকে উন্নত দেশে রূপান্তরিত করার প্রয়াস পেতাম না। আমরা মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হয়েছি, আমরা উন্নত দেশে রূপান্তরিত হওয়ার জন্য এগিয়ে যাচ্ছি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং তারি সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশিত পথ ধরে।
শুক্রবার (৫ মার্চ) বেলা সাড়ে ৩টায় নিয়ামতপুর বহুমুখী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সমতল ভূমিতে বসবাসরত অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ- গোষ্ঠীর আত্ম সামাজিক ও জীবন মানোন্নয়নের লক্ষ্যে সমন্বিত প্রাণি সম্পদ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় উন্নত জাতের বকনা গরু ও গো-খাদ্য উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথাগুলো বলেন।
প্রধান অতিথি আরও বলেন, আমাদের দেশে সমতল ভূমি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীরা দীর্ঘদিন থেকে অবহেলিত হয়ে আছে। তাদেরকে অনেকে নানা রকম প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন এনজিওরা বিভিন্নভাবে মিটিং করে নিয়েছে, মিছিল করে নিয়েছে এবং সেসব ভিডিও পাঠিয়ে বিদেশ থেকে টাকা নিয়ে এসেছে। কিন্তু সমতল ভূমির ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কোন উন্নয়ন হয় নাই। একটি গোষ্ঠী পেছিয়ে পড়ে থাকলে, এ দেশ উন্নত দেশে রূপান্তরিত হবে না। তাই শুধুমাত্র তাদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তাঁর কার্যালয়ে সমতল ভূমিতে বসবাসরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীদের জন্য আলাদা সেল গঠন করেছেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ, প্রকল্প পরিচালক ড. অসীম কুমার দাস, উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. ইয়ামিন আলী।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শহিদুজ্জামান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আইযুব হোসাইন মন্ডল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাদিরা বেগম, নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের কোষাধ্যক্ষ আব্দুল খালেক, সহ-দপ্তর সম্পাদক রনজিত কুমার, অন্যতম সদস্য আবেদ হোসেন মিলন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি বাবু ইশ্বর চন্দ্র বর্মনসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও দলীয় নেতাকর্মীবৃন্দ। উপজেলায় ১শ ৩০জনকে বকনা গরু ও ৫০ দিনের গো-খাদ্য বিতরণ করা হয়।