বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের প্রেরণা ভারত ম্যাচ

আপডেট: জানুয়ারি ৯, ২০২০, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের লক্ষ্যে জাতীয় দলের অনুশীলন শুরু হয়েছে-সংগৃহীত

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবলে কোনোবারই ট্রফি ছোঁয়া হয়নি স্বাগতিক বাংলাদেশের। প্রতিবারই আশায় বুক বেধে অংশ নিলেও শেষটা হয়েছে ব্যর্থতায়। এবারও আশায় বুক বেঁধে নামছে বাংলাদেশ।
৬ দলের এই প্রতিযোগিতায় র‌্যাঙ্কিংয়ে পিছিয়ে থাকা দল দুটি-শ্রীলঙ্কা ও সেশেলস। তবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন যে ট্রফি ধরে রাখার মিশনেই আসছে ,তা বলার অপেক্ষা রাখে না। আফ্রিকার দেশ বুরুন্ডি যেমন র‌্যাঙ্কিংয়ে ওপরে আছে, তাদেরও শক্তিশালী বলে ধরে নিতে হয়। এই দুটি দলকেই বাংলাদেশ দেখছে সমীহের চোখে।
টুর্নামেন্টের ‘এ’ গ্রুপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে পড়েছে বাংলাদেশ। আর ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে প্রথমবার খেলতে আসা তিন আফ্রিকান দেশ বুরুন্ডি, সেশেলস ও মরিশাস। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের ১৮৭ নম্বরে থাকা বাংলাদেশের ওপরে আছে তিনটি দেশ- ফিলিস্তিন (১০৬), বুরুন্ডি (১৫১) এবং মরিশাস(১৭২)। পিছিয়ে আছে সেশেলস (২০০) ও শ্রীলঙ্কা(২০৫)।
র‌্যাঙ্কিংয়ে প্রতিপক্ষ যতই এগিয়ে থাকুক, স্বাগতিকেরা সব বাধা পেরিয়ে এগিয়ে যেতে চাইছে। প্রেরণা হিসেবে নিতে চাইছে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে খেলা ম্যাচগুলো থেকে। বিশেষ করে ভারতের বিপক্ষে তাদের মাঠে ১-১ গোলে ড্র ম্যাচটি এখনও উজ্জীবিত করছে সোহেল রানা-সাদ উদ্দিনদের।
সর্বশেষ এসএ গেমসে অবশ্য ভরাডুবি হয়েছে লাল-সবুজ দলের। তবে পেছনের ব্যর্থতা ঝেড়ে এগিয়ে যাওয়াটাই এখন লক্ষ্য। আজ বুধবার থেকে কমলাপুর স্টেডিয়ামে জাতীয় দলের অনুশীলন শুরু হয়েছে।
প্রথম দিনে হালকা অনুশীলনের ফাঁকে মিডফিল্ডার সোহেল রানা বলেছেন, ‘ফিলিস্তিন ও বুরুন্ডিকে কঠিন প্রতিপক্ষ মনে হচ্ছে। গ্রুপ পর্ব পেরোতে পারলে হয়তো বুরুন্ডির মুখোমুখি হতে পারি। এই প্রতিযোগিতায় দুই শক্তিশালী দলের সঙ্গে লড়তে হবে। আমরা চাইছি ভালো খেলেই ফাইনালে জায়গা করে নিতে। যদি ভারতের সঙ্গে তাদের মাঠে ড্র করতে পারি, তাহলে ওই দুই দলের বিপক্ষেও ভালো ফল করতে পারবো। এ জন্য সব বিভাগে সর্বোচ্চটা দিতে হবে।’
এসএ গেমসের ব্যর্থতা সোহেলদের মনের মধ্যে এখনও ঝড় তোলে। তবে ওটা তাদের কাছে এখন একধরনের অনুপ্রেরণাও নাম, ‘এসএ গেমসে আমাদের বাজে ফল হয়েছে। ওটা যে আমাদের আসল খেলা না,সেটা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে প্রমাণ করতে হবে।’
কোচ জেমি ডে ছুটি কাটিয়ে আজই ঢাকায় এসেছেন। ২৩ সদস্যের সবারই আগামীকাল অনুশীলনে থাকার কথা। দলের সহকারী কোচ স্টুয়ার্ট ওয়াটকিস বলেছেন, ‘এই প্রতিযোগিতা আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। তিনটি দল আমাদের উপরে আছে। এর মধ্যে আফ্রিকান দলও আছে। তারা শারীরিকভাবে এগিয়ে থাকবে। তবে আমাদের ফিটনেস ভালো। যদি আমরা সংগঠিত হয়ে খেলতে পারি, তাহলে তাদের বিপক্ষে জয় সম্ভব।’