বঙ্গবন্ধু মানবতাবাদী ও জননন্দিত সাহসী নেতা : ব্যারিস্টার আমীর

আপডেট: ডিসেম্বর ৩০, ২০১৬, ১১:২৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



বাংলাদেশের সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার এম. আমীর-উল ইসলাম বলেন, মুজিবনগর সরকার ছিল স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার। মুজিবনগর সরকার গঠন করার মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধকে পরিকল্পিত ও সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালিত করে বিজয়ের অভীষ্ঠ লক্ষ্যে বাঙালি জাতিকে পৌঁছে দেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, ‘বন্দি মুজিব ছিল মুজিবনগর সরকার ও মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারীদের প্রেরণা ও সাহসের উৎস। বন্দি মুজিব এতটাই শক্তিশালী ছিলেন যে, তাঁর নাম উচ্চারণ করতে করতে হাসিমুখে হাজার হাজার মানুষ বুকের রক্ত ঢেলে দিয়ে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেছে।’
গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় জুবেরি ভবন মধ্য লাউঞ্জ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, এর উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস-২০১৬ উপলক্ষে ’মুজিবনগর সরকার ও স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে এসব কথা বলেন ব্যারিস্টার এম. আমীর-উল ইসলাম।
প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের কনভেনর প্রফেসর ড. রকীব আহমদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রায় আড়াই ঘন্টাব্যাপি আলোচনার অবতারণা করে প্রধান আলোচক মুক্তিযুদ্ধের নানা প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বিশ্বের অন্যতম একজন শেষ্ঠ মানবতাবাদী ও জননন্দিত সাহসী নেতা।
ব্যারিস্টার এম. আমীর-উল ইসলাম মুজিবনগর সরকার গঠনের নানা স্মৃতিচারণ করে বলেন, মুজিবনগর সরকার গঠন না হলে বিশ্ববাসীর সমর্থন আদায় করে এত দ্রুত স্বাধীনতা যুদ্ধে বিজয় লাভ করা সম্ভব হতো না। আলোচনায় তিনি কিভাবে কোন প্রেক্ষিতে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র লিখেছেন তার বর্ণনাও তুলে ধরেন।
আলোচনায় অংশ নেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধিকর্তা ও প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য প্রফেসর ড. এম ফয়জার রহমান এবং  ব্যারিস্টার এম. আমীর-উল ইসলাম-এর জীবন ও কর্মের উপর বর্ণনা তুলে ধরেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ও  প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য প্রফেসর ড. মো: হাসিবুল আলম প্রধান। আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের সদস্যসচিব অধ্যাপক ড. এম. রবিউল ইসলাম।  আলোচনা সভয় প্রচুর শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন এবং তাঁরা মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে প্রধান আলোচকের দীর্ঘ বক্তব্য শোনেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ