বঙ্গবন্ধু রাজশাহী টি-২০ ক্রিকেটের ফাইনালে শহিদ শামসুল আলম স্মৃতি সংঘ

আপডেট: জুন ২১, ২০২২, ১১:৩৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


দ্বিতীয় বঙ্গবন্ধু রাজশাহী টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের কোয়ালিফাইড রাউন্ডে রাইমা রেঞ্জার্সকে ৪ উইকেটে পরাজিত করে ফাইনালে পৌছেল শহিদ শামসুল আলম স্মৃতি সংঘ (এসএস আলম স্মৃতি সংঘ)। এলিমেনিটর রাউন্ডে উত্তেজনাপূর্ণ খেলায় শেষ বলে বাউন্ডারী মেরে এক উইকেটে নেশন টেককে পরাজিত করে ২য় কোয়ালিফাইড পর্বে উঠে মুক্তি সংঘ।

মঙ্গলবার (২১ জুন) শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান বিভাগীয় স্টেডিয়ামে রাজশাহী বিভাগীয় ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে ২য় বঙ্গবন্ধু টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের কোয়ালিফাইড রাউন্ডের খেলায় টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয় এসএস আলম স্মৃতি সংঘের অধিনায়ক ফরহাদ হোসেন। খেলার শুরুতেই ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পরে রাইমা রেঞ্জার্স।

সোহান, রমজান ও মিজানকে হারায় দলীয় ১৬ রানের মাথায়। এর পর ইমরুল কায়েশ আউট হন দলের ৫৬ রানে। এরপর জিম্বাবুয়ের জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সিকান্দার রাজা দলের হাল ধরলে নির্ধারিত ১৯ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১১৬ রান করে রাইমা রেঞ্জার্স। ফরেন খেলোয়াড়দের মধ্যে সিকান্দার রাজা ৩৪, ইমরুল কায়েস ২৯ ও শ্রীলঙ্কান থিসারা পেরেরা ১ রান করেন। এসএস আলম স্মৃতি সংঘের আলাউদ্দিন বাবু ২৩ রানের বিনিময়ে ৪ উইকেট লাভ করেন।

জবাবে ১১৭ রানের ছোট টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ১৯ দলের খেলোয়াড় এসএস আলম স্মৃতি সংঘের মেহরাব হোসেন অহিনের ৪৭ বলে অপরাজিত ৫৮ রানের সুবাদে ৬ উইকেট হারিয়ে সহজ জয় তুলে ফাইনালে চলে যায় এসএস আলম স্মৃতি সংঘ। রাইমা রেঞ্জার্স এর মোহর ১৫ রানে ৩ উইকেট লাভ করেন।

দিনের অপর এলিমেনিটর রাউন্ডের উত্তোজনাপূর্ণ খেলায় শেষ বলে বাউন্ডারী মেরে মুক্তি সংঘকে জেতায় রাজিবুল। মুক্তি সংঘের ৯ উইকেট পরে গেলে শেষ বলে প্রয়োজন ছিল ৩ রান। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক খেলোয়াড় আবু হায়দার রনি’র শেষ বলটি অফ স্ট্যাম্পের উপর ফুলটস করলে রাজিবুল বলটি ফ্লাস করে ১ম ও ২য় স্লিপের মাঝখান দিয়ে বাউন্ডারী লাইন পার করলে মুক্তি সংঘ ১ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয়। বৃষ্টি বিঘ্নিত এই খেলাটি ১২ ওভারে অনুষ্ঠিত হয়।

টস জিতে মুক্তি সংঘ নেশন টেককে ব্যাটিং করতে পাঠালে ১২ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১০৮ রান করেন। অভিষেক মিত্র ১৮ বলে ৩৮ রান করেন। মু্িক্ত সংঘের মুক্তার আলী ১৫ রানে ৪ উইকেট লাভ করেন। ১০৯ রানের জবাবে মুক্তি সংঘ ১২ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১১০ রান তুলে নেয়। মুক্তি সংঘের সাহদাত ১৪ বলে ২৬ রান করেন। নেশন টেকের সুজন ২১ রানে ৩ উইকেট লাভ করেন। আগামী ২৩ জুন রাইমা রেঞ্জার্স ও মুক্তি সংঘের মধ্যে জয়ী দলটি ফাইনালে এসএস আলম স্মৃতি সংঘের সাথে খেলবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ