বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী আজ

আপডেট: আগস্ট ৮, ২০২২, ১২:৩২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছিলেন হীরক-উজ্জ্বল হয়ে ওঠা এক নারী। আজ তাঁর ৯২তম জন্মবার্ষিকী। যখন তার বয়স ৪৫- তখন ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকের নির্মম বুলেটের আঘাতে স্বামী, সন্তানসহ তিনি শহিদ হন।

বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব একটি নীরব বিপ্লবীর নাম। সাহসী বঙ্গমাতা। তিনি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী। বাঙালির সংগ্রাম আন্দোলনের নিরিখে একটি ইতিহাস। একজন সাধারণ গৃহবধূ হয়েও সংগ্রামে অবতীর্ণ হয়েছেন তিনি। তার ডাক নাম রেনু। বেগম ফজিলাতুন্নেছা একজন সাধারণ নারী। কিন্তু অসাধারণ তার চরিত্র। তিনি ছিলেন অতুলনীয়া।

এ রকম নীরব বিপ্লবী এবং দেশপ্রেমের জন্য স্বামী-সন্তান সব উৎসর্গ করতে পারেন, ইতিহাসে এমন নারীর কাহিনী খুব কমই পাওয়া যায়। চিরায়ত বাংলার উজ্জ্বল প্রতীক বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে ১৯৩০ সালের ৮ আগস্ট জন্মগ্রহণ করেন। বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মাত্র তিন বছর বয়সে পিতা ও পাঁচ বছর বয়সে মাতা হারান।

পিতার নাম শেখ জহুরুল হক এবং মাতার নাম হোসনে আরা বেগম। দাদা শেখ কাশেম। বঙ্গবন্ধুর আত্মীয় পরিবারের মেয়ে। চাচাতো ভাই শেখ লুৎফর রহমানের পুত্র শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে বেগম ফজিলাতুন্নেছার বিয়ে হয়। তখন থেকে বেগম ফজিলাতুন্নেছার শাশুড়ি বঙ্গবন্ধুর মাতা সায়েরা খাতুন নিজ সন্তানদের সাথে মাতৃস্নেহে লালন-পালন করেন। বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেছা প্রথমে গোপালগঞ্জ মিশন স্কুলে ও পরবর্তীতে সামাজিক কারণে গৃহশিক্ষকের কাছে পড়াশুনা করেন।