বদলগাছী ছোট যমুনার বেড়িবাঁধের বিভিন্ন স্থানে ভাঙন || বাঁধ রক্ষায় রাতদিন কাজ করছেন এলাকাবাসী

আপডেট: আগস্ট ১৯, ২০১৭, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

বদলগাছী প্রতিনিধি


নওগাঁর বদলগাছীতে উপর দিয়ে প্রবাহিত ছোট যমুনা নদী বাঁধ উপচে পড়ছে পানি। বাঁধের ধারণ ক্ষমতা শেষ। আকাশের বৃষ্টি নেই তবুও নদীর উর্ধ্বগতি। এলাকাবাসী দিশেহারা হয়ে পড়েছে। ছোট যমুনা নদীর বদলগাছী সীমানার মধ্যে প্রায় অর্ধশতাধিক ভয়াবহ ভাঙন ঠেকিয়ে রেখেছে এলাকাবাসী। এখন যেন পুরো বাঁধটাই প্রোটেকশান দিতে হচ্ছে। বাঁধ রক্ষা নয় বাঁচার তাগিদে এলাকাবাসী নদীর ভাঙন রক্ষায় যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে। দেখা দিচ্ছে নতুন নতুন জায়গায় ভাঙন।
সরেজমিনে গিয়ে এবং স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এলাকায় মাইকিং করার সঙ্গে সঙ্গে ৮ থেকে ১০ গ্রামের লোকজন বস্তা ও খুঁটি নিয়ে ছুটে আসছে বাঁধে। কেউ মাটি কেটে বস্তা ভরে দিচ্ছে আবার কেউ বস্তা কাঁধে করে নিয়ে ভাঙনের স্থানে ফেলছে। হাজার হাজার লোক বাঁধে কাজ করছে। মাঠ বা ফসলের চিন্তা আর কেউ করছে না। সবার এখন একই ভাবনা বাঁধ ঠেকাতে হবে। বাড়িঘর রক্ষা করতে হবে। গতকাল দুপুরের পরে মাইকিং করা হয় নাজিরপুর, তাজপুর মোড়ে ছোট যমুনার বাঁধের এক পাশে ধসে পড়েছে। মাইকিং শুনে এলাকার হাজার হাজার জনসাধারণ বস্তা খুঁটি নিয়ে বাঁধে হাজির হয়। বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কাজ করে ভাঙন রোধ করে। তার পরেও চলছে রাতভর পাহারা। বিলাশবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান কেটু ও আধাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির চৌধুরী বলেন মেম্বারসহ তাদের কোন আহার নিদ্র নেই। বাঁধে কাজ করতে করতে এলাকবাসীও ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। বালুভরা ইউপি চেয়ারম্যান ও মথুরাপুর ইউপি চেয়ারম্যান বলেন বিভিন্ন স্থানে ভাঙন ঠেকাতে তারসহ গ্রামবাসী তৎপর রয়েছে। দিনরাত খোঁজখবর নিচ্ছেন স্থানীয় সাংসদ ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম। সার্বক্ষনিক মনিটরিং করছেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা অলী আহম্মেদ রুমি চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান সম ফজলুল হক বাচ্চু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুম আলী বেগ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবদুুল করিম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ