বন্ধুকে কুমিরের হাত থেকে বাঁচাল ৬ বছরের মেয়ে!

আপডেট: এপ্রিল ৭, ২০১৭, ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বাসন্তী ও টিকি দুই বন্ধু। দু’জনেই প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। দুই বন্ধু মিলে পাশেরই একটা পুকুরে স্নান করতে গিয়েছিল। তখনও জানত না কী ভয়ঙ্কর বিপদ তাদের জন্য ওৎ পেতে রয়েছে তাদের জন্য!
দুই বন্ধু পুকুরে নামতেই আচমকাই একটি কুমির বাসন্তীকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। প্রথমে কিছুটা ঘাবড়ে গেলেও, চট করে নিজেকে সামলে নিয়ে কাছেই পড়ে থাকা একট বাঁশ দিয়ে কুমিরের মাথায় বেশ কয়েক বার আঘাত করে টিকি। মাথায় আঘাত পেয়েই কুমিরটা বাসন্তীকে ছেড়ে দেয়। তার পরই আশপাশের লোকজনকে চিৎকার করে ডাকে টিকি। পড়শিরা এসে বাসন্তীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়। বাসন্তীর হাতে ও পায়ে গভীর ক্ষত হয়েছে। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন ভয়ের কিছু নেই। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার ওড়িশার কেন্দ্রাপাড়া জেলার একটি গ্রামে।
ছোট্ট মেয়েটি জানিয়েছে, বন্ধুকে চোখের সামনে ছটফট করতে দেখে আর কোনও দিকেই খেয়াল ছিল না তার। হাতের সামনে বাঁশ ছিল বলেই কুমিরটাকে তাড়াতে পেরেছে সে। না হলে তার বন্ধুকে সে চির কালের মতো হারাত। তবে সেটা হতে দেয়নি অসমসাহসী টিকি। সে আরও জানায়, বন্ধুকে বাঁচাতে পেরেছে, তার কাছে এটাই অনেক।
টিকির বাহাদুরিতে গোটা গ্রাম আল্হাদে আটখানা। সে এখন গোটা গ্রামের হিরো।
এই ঘটনার কথা বনদফতরের কাছে পৌঁছয়। রাজনগর ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট ডিভিশনের আধিকারিক বিমল প্রসন্ন আচার্য জানান, আহত শিশুটির চিকিৎসার খরচ দেবেন তাঁরা।- আনন্দবাজার পত্রিকা