বাংলাদেশি তরুণীকে ডেকে এনে দলগতধর্ষণ! দুই দোষীকে ২০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ আদালতের

আপডেট: জুন ৪, ২০২২, ১০:০১ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


বাংলাদেশি তরুণীকে ভারতে নিয়ে এসে, আটকে রেখে দলগতধর্ষণ। সেই মামলায় দোষী সাব্যস্ত দুই ব্যক্তিকে ২০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিল আদালত। শনিবার বনগাঁ মহকুমা অতিরিক্ত দায়রা আদালতের বিচারক শান্ত মুখোপাধ্যায়ের এই সাজা ঘোষণা করেন৷

সরকারি আইনজীবী অশোক প্রামাণিক বলেন, “২০২১ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর বাগদা থানার হরিহরপুর এলাকার এক বাংলাদেশি তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগ শরিফুল মল্লিক মহসিন বিশ্বাস নামে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছিল বাগদা থানার পুলিশ। এতদিন তাদের জেলে রেখে বিচার প্রক্রিয়া চলছিল।

বিচারক তাদের দোষী সাব্যস্ত করে কুড়ি বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছেন। এক লক্ষ টাকা করে জরিমানাও ধার্য করেছেন। পাশাপাশি তরুণীকে আটকে রাখার মামলায় তাদের আরও ৬ মাসের কারাদ-ের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।”

আইনজীবী ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০২১ সালের সেপ্টেম্বর মাসে কাজের প্রলোভন দেখিয়ে এক বাংলাদেশি তরুণীকে বাগদার হরিহরপুরে ডেকে এনেছিল ওই দুই যুবক। অভিযোগ, তরুণীকে আটকে রেখে ১৪ই অক্টোবর ফাঁকা মাঠের পাশের বাগানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে তারা৷ এরপরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বাগদা থানায় খবর দেয়। পুলিশ অভিযুক্ত দুই যুবককে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছিল। তারপর থেকে ধৃতদের জেল হেফাজতে রেখে বিচার প্রক্রিয়া চলছিল।

পুলিশ জানিয়েছে,ধৃতদের বিরুদ্ধে পকসো ও দলগতধর্ষণ মামলা রুজু করা হয়েছিল। পরবর্তীতে তরুণীর নাবালিকা হওয়ার কোনও প্রমাণ না মেলায় ধৃতদের পকসো মামলা থেকে তাদের মুক্তি দেওয়া হয়েছে।

এদিন তাদের দোষী সাব্যস্ত করে সাজা ঘোষণার পর অভিযুক্তদের পক্ষের আইনজীবী সঞ্জয় দাস বলেন, “আমার মক্কেলদের পকসো ধারা থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। গণধর্ষণের মামলায় তাদের বিরুদ্ধে সাজা শোনানো হয়েছে। আমরা উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হব।”
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন