বাংলাদেশের ‘ব্যাড লাক’

আপডেট: মার্চ ৮, ২০১৭, ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ষষ্ঠ ওভারে আক্রমণে এসেই আঘাত হেনেছিলেন শুভাশীষ রায় চৌধুরী। পরের বলেই পেতে পারতেন ‘দামি’ এক উইকেট। কিন্তু ‘নো’ বলের কল্যাণে শূন্য রানে বেঁচে যান কুসল মেন্ডিস। ১৬৬ রানে অপরাজিত এই টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান এরপর ভুগিয়েছেন বাংলাদেশকে। দিন শেষে দলের প্রতিনিধি হয়ে সাংবাদিকদের সামনে আসা মেহেদী হাসান মিরাজ কুসলের জীবন পাওয়াটাকে বললেন ‘বাংলাদেশের ব্যাড লাক’।
“আমরা আমাদের সেরা চেষ্টা করেছি। ইচ্ছা করে তো আর কেউ নো বল করে না, হয়ে যায়। তারপর মেন্ডিস খুব ভালোভাবে সামলেছে। ওর বেঁচে যাওয়াটা আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যজনক। ও তখন ফিরে গেলে খেলার চিত্রটা অন্যরকম থাকতো।”
গল ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার প্রথম দিনের খেলা শেষে শ্রীলঙ্কার স্কোর ৪ উইকেটে ৩২১ রান। স্বাগতিকদের ততদূর যাওয়ায় সবচেয়ে বড় অবদান মেন্ডিসের সঙ্গে আসেলা গুনারতেœর ১৯৬ রানের চমৎকার জুটির।
“আমাদের বোলাররা শুরুতে ভালো বোলিং করেছে। শুভাশীষদা, তাসকিন ভাই খুব ভালো বোলিং করেছে। মুস্তাফিজের শুরুটা খুব ভালো ছিলৃ শুরুতে উইকেটও নিয়েছিলাম আমরা। কিন্তু ওরা একটা জুটি গড়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে।”
প্রথম দিন উইকেট থেকে কোনো সহায়তা পাননি মিরাজ ও অন্য স্পিনার সাকিব আল হাসান। দুই জন মিলে ৩৬ ওভার বল করে ১৩৭ রান দিয়ে পান ১ উইকেট। তরুণ অফ স্পিনার মনে করেন, মেন্ডিসকে দ্রুত ফেরাতে পারলে চিত্রটা ভিন্ন হতো।
“স্পিনাররা তেমন কোনো সহায়তা পাচ্ছে না। আমিও বল করেছি, সাকিব ভাইও বল করেছেন কিন্তু কেউই কোনো সহায়তা পাইনি। ওদের ব্যাটসম্যানরা বিশেষ করে মেন্ডিস স্পিনারদের খুব ভালোভাবে খেলেছে।”-বিডিনিউজ