বাংলাদেশে হোয়াইটওয়াশের হুমকিতে হতবাক স্মিথ!

আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০১৭, ১২:২৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


এক সময়ের পরাক্রমশালী দল। এখনো কম যায় না। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে ৪ নম্বর দল। ভারতের মাটিতে ফেব্রুয়ারি-মার্চে সিরিজ যদিও হেরে এসেছে ২-১ এ। তবে তার আগে ২০১৬ সালে শ্রীলঙ্কার কাছে ৩ টেস্টের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়ে নিদারুণ লজ্জায় পড়েছিল। তাই বলে বাংলাদেশের কাছে তারা হোয়াইটওয়াশ হবে দুই টেস্টের এই সিরিজে? ব্যাপারটা বুঝি অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথের কল্পনারও ওপারে। শনিবার প্রথম টেস্টপূর্ব প্রেস কনফারেন্সে তাই বাংলাদেশ কোচ-খেলোয়াড়দের দেওয়া হোয়াইটওয়াশের হুমকির প্রসঙ্গে স্মিথের প্রায় হতবাক প্রতিক্রিয়াই মিললো। বাংলাদেশ দলকে তার কাছে একটু বেশি ‘আত্মবিশ্বাসী’ মনে হচ্ছে!
কথাটা প্রথম বলেছিলেন কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। লঙ্কান এই কোচের স্বভাবজাত প্রবণতা যে কোন দলের বিপক্ষে জয়। অস্ট্রেলিয়াকে হোয়াইটওয়াশ করা সম্ভব এমন কথা সবার প্রথমে বলেছিলেন তিনিই। এরপর সাকিব আল হাসানও বলেছেন একই কথা। তামিম ইকবালও সুর মিলিয়েছেন সাকিবের কণ্ঠে। কিন্তু হোয়াইটওয়াশের ভবিষ্যতবাণীতে স্মিথ যেন বড্ড ধাক্কাই খেয়েছেন, ‘এটা বেশি আত্মবিশ্বাস। তাই নয় কি? আমি জানি বাংলাদেশ ১০০ টেস্টের মধ্যে মাত্র ৯টি টেস্টে জয় পেয়েছে। তাই এটি অতি আত্মবিশ্বাসী ভবিষ্যতবাণী। তবে অবশ্যই তারা এই মুহূর্তে তাদের স্কিল প্রয়োগের ব্যপারে আত্মবিশ্বাসী। তারা ঘরের মাঠে খেলবে। বেশির ভাগ দলই ঘরের মাঠে ভালো খেলে। বাংলাদেশও ঘরের মাঠে ভালো খেলে। তাই অবশ্যই সিরিজটি আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।’ এরপর স্মিথ সরাসরি বললেন তার বিস্ময়ের কথা, ‘হ্যাঁ, সামন্য হলেও মন্তব্যটি আমাকে অবাক করেছে।’
কোচ হাথুরুসিংহে এবং সাকিব ও তামিম হোয়াইটওয়াশের কথা বললেও শনিবার মুশফিক বলেছেন সিরিজটি দুই দলের জন্য ‘ফিফটি-ফিফটি’। তা স্মিথ কি বলছেন এ বিষয়ে? ‘ফিফটি-ফিফটি’ কথাটা উচ্চারণ না করে স্মিথ ব্যবহার করলেন চ্যালেঞ্জিং শব্দটা,‘আমি মনেকরি এটি দারুণ একটি সিরিজ হবে। ভারতে আমরা যেমন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছিলাম, এখানেও আমার দলের সেই চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। উইকেট দেখে মনে হয়েছে ভারতের মতোই হবে অনেকটা। আশাকরি আমরা সেখানে যেমন খেলেছি তার থেকে শিখতে পারবো। এবং সন্দেহ নেই এটি উত্তেজনাপূর্ন একটি সিরিজ হবে।’