বাগমারায় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে রাস্তার গাছ কাটার অভিযোগ

আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০১৭, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি


রাজশাহীর বাগমারার নরদাশ ইউনিয়নের স্থানীয় বিএনপি’র নেতা ও ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে রাস্তার সরকারি গাছ কেটে আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। ওই ঘটনায় বিএনপি’র আরেক নেতা শামসুল আলম বাদি হয়ে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিউল ইসলাম বিষয়টি সরজমিনে দেখে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) আলমগীর হোসেনকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দফতরের লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েকদিন পূর্বে নরদাশ ইউনিয়নের নরদাশ গ্রামের স্থানীয় বিএনপির নেতা ও ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে হাটমাধনগর থেকে নরদাশ বাজারে যাওয়ার সরকারি রাস্তার বাবলার তিনটি গাছ নিজেই কেটে নিয়ে যায়। এসময় স্থানীয় লোকজন বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করলে তিনি তাদেরকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে গাছগুলো পার্শ্বের একটি স’মিলে রাখে। বর্তমানে বাবলার কাঠগুলো ওই স’মিলে রয়েছে বলে এলাকার লোকজন জানিয়েছেন।
এলাকার লোকজনের অভিযোগ, রফিক ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই এলাকায় সরকারি রাস্তার গাছসহ বিভিন্ন সরকারি সম্পদ আত্মসাত করে আসছে। তার বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে পুলিশ দিয়ে বিভিন্নভাবে হয়রানি ও নাজেহাল করা হয় বলে এলাকার লোকজন জানান। গাছগুলো বর্তমান বাজারে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা দাম হবে বলে এলাকার কাঠ ব্যবসায়ীরা জানান। নরদাশ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মতিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি গাছ কাটার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এলাকায় ব্যাপক বন্যা হওয়ায় তিনি কোনো দিকে নজর দিতে পারেন নি বলে জানিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিউল ইসলাম জানান, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) আলমগীর হোসেনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তিনি অল্প সময়ের মধ্যে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানিয়েছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ