বাগমারায় কেবল অপারেটরকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা

আপডেট: এপ্রিল ৫, ২০১৭, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীর বাগমারায় গতকাল মঙ্গলবার এক ক্যাবল অপারেটরকে গলাকেটে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাঁর নাম তন্ময় কুমার (২০)। তিনি উপজেলার তাহেরপুর জেলেপাড়ার সন্তোষ কুমারের ছেলে। বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে ধারালো চাকু দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়।
তন্ময়কে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ তিন বখাটেকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলেন, তাহেরপুর পৌরসভার জামগ্রামের শাকিব (১৮), গোপালপাড়ার ফয়সাল (১৭) ও নূরপুরের সুজন (১৭)।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল সন্ধ্যায় ক্যাবল অপারেটর তন্ময় কুমার মোটরসাইকেল নিয়ে জামগ্রামের দিকে যাচ্ছিলেন। তিনি তাহেরপুর পৌরভবনের সামনে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি অটোভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। পরে ভ্যানে থাকা বখাটেরা মোটরসাইকেল থামিয়ে ক্যাবল অপারেটরের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে তারা অপারেটরকে মারপিট করে এবং ধারাল চাকু দিয়ে গলাকেটে হত্যার চেষ্টা করে। এসময় তিনি মাটিতে পড়ে গেলে ঘটনাস্থলের পাশে থাকা লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার ব্যবস্থা করে। এসময় লোকজন ধাওয়া করে তিন বখাটেকে আটক করে। থানায় খবর দেয়া হলে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের আটক করে । তাদের সবার বয়স ১৫ থেকে ২০ বছরের মধ্যে।
বাগমারা থানার ওসি নাছিম আহম্মেদ জানান, আহত ক্যাবল অপারেটরের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিন বখাটেকে আটক করা হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা রেকর্ড হয়নি। তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে ।