বাগমারায় গোপনে পুকুর খনন, মাটি ইটভাটায় নেয়ার সময় ট্রলি উল্টে চালক নিহত

আপডেট: মার্চ ২৫, ২০২০, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি


বাগমারায় গোপনে রাতের আঁধারে পুকুর খনন করে সেখানকার মাটি একটি ইটভাটায় নেয়ার সময় ট্রলি উল্টে গেলে চালক নিহত হয়েছে। নিহত ওই চালকের নাম মোহন (২১)। সে পার্শ্ববর্তী পুঠিয়া উপজেলার খোকসা গ্রামের বাসিন্দা বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। পরে পুলিশ নিহত ওই শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করলেও কোনো অভিযোগ না থাকায় পরে তা পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, অবৈধ পুকুর খননকারী ও অবৈধ ভাটা মালিক টাকার বিনিময়ে নিহত শ্রমিক পরিবার ও পুলিশকে দিয়ে এই অপরাধ ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের কনোপাড়া গ্রামের প্রভাবশালী আতিকুল ইসলাম কনোপাড়া দিঘিরপাড় এলাকায় প্রায় বিশ একর এলাকাজুড়ে সাধারণ কৃষকের জমি দখল করে সম্প্রতি একটি অবৈধ পুকুর খনন শুরু করে। পুকুরটি গত এক সপ্তাহ ধরে রাতে খনন কাজ চালায় আতিকুল। ইউএনও’র কাছে এ ব্যাপারে অনুমতি নেয়া হয়েছে- এমন কথা সে এলাকায় বলে বেড়ায়। রাতের আঁধারে পুকুর খনন করার মাটি পরিবহনকালে এই দুর্ঘটনা ঘটে। খননকৃত মাটি পার্শ্ববর্তী তালতলি এলাকার আবদুল কাদের নামক একটি ইটভাটায় নিয়ে যাওযার সময় শীবজাইট এলাকায় ট্রলি উল্টে চালক মোহন ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। রাতেই বিষয়টি জানাজানি হলে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুকুর খননকারী ও ভাটামালিকের লোকজন। তারা শ্রমিক পরিবার ও থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে গতকাল মঙ্গলবার সকালের মধ্যেই নিহত মোহনের লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই তার পরিবারের কাছে হস্তান্তরের ব্যবস্থা করেছে।
এ দিকে সম্প্রতি করোনাভাইরাসকে ইস্যু করে উপজেলাব্যাপী অবৈধ পুকুর খননের হিড়িক পড়ে যায়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) সহ প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ করোনা নিয়ন্ত্রণে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করতে ব্যস্ত থাকায় কৌশলী সিন্ডিকেট রাতের আঁধারে শুরু করে পুকুর খনন কাজ।
বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান শ্রমিক নিহতের ঘটনা নিশ্চত করে বলেন, ঘটনার পরপরই পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। তবে ওই শ্রমিক পরিবারের কোনো অভিযোগ না করায় লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদ জানান, পুকুর খনন ও ইটভাটা দুটোই অবৈধ। উভয়ের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।