বাগমারায় জব্দকৃত তেল বিক্রি হবে প্রতি লিটার ১১০ টাকায়

আপডেট: মে ২৫, ২০২২, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় জেলা পুলিশের অভিযানে জব্দকৃত ২৫ হাজার ৭৯৪ লিটার তেল বিক্রির অনুমতি দিয়েছে রাজশাহী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। মঙ্গলবার (২৪ মে) বেলা ১২ টার দিকে রাজশাহী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মারুফ আল্লাম এ নির্দেশনা দিয়েছেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বাগমারা এলাকার টিসিবির অনুমোদিত ডিলারের মাধ্যমে জব্দকৃত তেল প্রতিলিটার ১১০ টাকায় বিক্রির অনুমতি দিয়েছেন আদালত। রাজশাহী জেলা পুলিশের জব্দকৃত ভোজ্যতেল রাষ্ট্রীয় আলামত। এগুলো দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করা সম্ভব না। আবার বর্তমানে দেশে ভোজ্যতেলের সঙ্কট ও তেলের মূল্য সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে রয়েছে।

সার্বিক বিষয় বিবেচনায় নিয়ে বিজ্ঞ বিচারক ফৌজদারি কার্যবিধির ৫১৬ ধারার বিধি মোতাবেক জব্দকৃত তেল টিসিবির জন্য সরকার কর্তৃক নির্ধারিত মূল্যে টিসিবির অনুমোদিত ডিলারদের মাধ্যমে (তালিকা টিসিবি, রাজশাহী থেকে সংগৃহীত) সাধারণ ভোক্তাদের মাঝে খোলা বাজারে বিক্রির নির্দেশ দিয়েছে আমলি আদালত-২।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাজশাহী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের কোর্ট ইন্সপেক্টর মো. আব্দুর রফিক বলেন, বাগমারায় জব্দকৃত মোট ২৬ হাজার ৭২৪ লিটার তেলের মধ্যে ২৫ হাজার ৭৯৪ টিসিবি অনুমোদিত ডিলারের মাধ্যমে বিক্রির নির্দেশ দিয়েছেন রাজশাহী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক।

বাকি ৯৩০ লিটার তেল বাগমারার মেসার্স মোবিদুল এন্টার প্রাইজের মোবিদুল ইসলাম ও মেসার্স বেলাল ট্রেডার্সের রফাতুল্লাহ প্রামাণিক নামের দুইজন টিসিবির অনুমোদিত ডিলারকে সাধারণ ভোক্তাদের মাঝে নায্যমূল্যে বিক্রির অনুমতি দিয়েছেন।

ইন্সপেক্টর আব্দুর রফিক আরও বলেন, জব্দকৃত তেল বিক্রির বিষয়ে বাগমারার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিলি ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত কিছু নির্দেশনাও দিয়েছেন আদালত। সেগুলো হচ্ছে, ০.৩৫ শতাংশ বিক্রয় কর বাবদ প্রতি লিটার তেল ১০৫.৩৭ টাকায় বাগমারা থানা ডিলারদের বুঝিয়ে দেবেন।

আদায়কৃত অর্থ বাগমারার ওসিকে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, রাজশাহী-এর হিসাবরক্ষক বরাবর প্রদান করবেন। পরে হিসাবরক্ষক রাষ্ট্রের ফেরতযোগ্য কোডে চালানযোগে ওই অর্থ জমা করবেন। চলতি মাসের ২৮ ও ২৯ মে বাগমারার ঝড়গ্রাম ও জলপাইতলায় তেল বিক্রি শুরু হবে।

তেল বিক্রির সময় আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখা ও বিক্রয়-কার্যক্রম তদারকির জন্য একজন এসআইকে নিযুক্ত করবেন। বিক্রয় কেন্দ্রে দুই লিটারের বেশি তেল যেন বিক্রি করা না হয় এবং প্রতি লিটার ১১০ টাকার বেশি দামে যেন না বিক্রি হয় সেটিও এসআই নিশ্চিত করবেন। বিক্রয়-কার্যক্রম শেষ হওয়ার পরপরই একটি প্রতিবেদন অনতিবিলম্বে আদালতে পাঠানোর জন্যও বাগামারা থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত বলেও জানান সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত পুলিশের এ কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত, গত ৯ মে বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর বাজারপাড়া ও তেলিপাড়া এলাকার দুইটি গুদাম থেকে ১৯ হাজার ২২৪ লিটার সয়াবিন এবং ৭ হাজার ৫০০ সরিষার তেল জব্দ করে জেলা পুলিশ। এই ঘটনায় তেল ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম স্বপনকে (৪০) গ্রেফতারও করা হয়। পালিয়ে যান মজুদকান্ডে যুক্ত স্বপনের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম। তাদের দুইজনের নামে ওই দিনই বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করে বাগমারা থানা পুলিশ।

রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতেখায়ের আলম জানান, শহিদুল ইসলাম স্বপনের এখনও জামিন হয়নি। সে কারাগারে আছে। আর তার বড় ভাই রফিকুল ইসলাম পালাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।