বাগমারায় ধর্ষণ চেষ্টা মামলার আসামি গ্রেফতার

আপডেট: মে ২৮, ২০১৭, ১:০২ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি


রাজশাহীর বাগমারায় ধর্ষনের চেষ্টা ও শ্লীলতাহানী মামলার প্রধান আসামি আসাদুল ইসলামকে (২৬)গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে অভিযান চালিয়ে বাগমারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ ।
বাগমারা থানার মামলা সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (২৬ মে) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউণিয়নের তেলিপুকুর গ্রামের গোলাম মোস্তফার স্ত্রী বাড়ীর পার্শ্বে ভুট্টা খেতে ছাগলের জন্য পাতা তুলতে গেলে একই গ্রামের আবদুুস সামাদের ছেলে আসাদুল ইসলাম ওই গৃহবধুকে একা পেয়ে পিছন থেকে জাপটে ধরে ধর্ষনের চেষ্টা করে। এ সময় ওই গৃহবধু কোনো রকমে নিজেকে রক্ষা করে। ওই গৃহবধু বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি পরিবারের অন্যান সদস্যদের জানালে তার স্বামী বিষয়টি জানানোর জন্য আসাদুলের বাড়িতে যায়। বিষয়টি আসাদুলের পিতা সামাদকে জানালে তারা ওই গৃহবধুর স্বামীকে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। খবর পেয়ে ওই গৃহবধুর স্বামীর পরিবারের সদস্যরা আহতকে উদ্ধারে এগিয়ে আসলে আসাদুলের পিতা সালাম, ভাই আপেল, চাচা জালাল উদ্দীন ও আসাদুলসহ আরো কয়েকজনে মিলে উদ্ধারকারীদের উপর হামলা চালিয়ে মহিলাসহ ১০ জনকে আহত করে। আহতদের গত শুক্রবার বিকেলেই বাগমারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। রাতেই ওই গৃহবধু বাদী হয়ে আসাদুলের বিরুদ্ধে ধর্ষনের চেষ্টা ও তার পিতা সামাদ এবং ভাই আপেলের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন। আসাদুলের বিরুদ্ধে এলাকায় একাধিক নারী কেলেংকারীর অভিযোগ রয়েছে বলে এলাকার লোকজন জানিয়েছেন। তাকে গ্রেফতারের জন্য এলাকার অর্ধশত লোক গতকাল থানার সামনে ভিড় করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। গতকাল বিকেলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাগমারা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন অভিযান চালিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকা থেকে আসাদুলকে গ্রেফতার করে। অল্পের জন্য আরেক আসামি আপেল সেখান থেকে পালিয়ে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাগমারা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল শনিবার বিকেলে আসাদুলকে বাগমারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাছিম আহম্মেদ জানান, রাতেই গৃহবধু নিজেই বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। গতকাল বিকেলেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে আসাদুলকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত আসাদুলকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।