বাগমারায় পৈত্রিক সম্পত্তি ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট: জানুয়ারি ১২, ২০২০, ১:২৭ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি


রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর পৌর বাজারে পৈত্রিক সম্পত্তি ফিরে পেতে গতকাল বাগমারা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মৃত কছিম উদ্দিন সরদারের ছেলে-মেয়েরা। গত ৪ জানুয়ারি তাদের জমিজমা দখল, ভাঙচুর ও লুটপাট করা হলে ৭ জানুয়ারি ভূক্তভোগীদের বাড়িঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় মৃত কছিম উদ্দিন সরদার এর মেয়ে লাভলী বেগম বাদী হয়ে ১১ জনকে আসামী করে রাজশাহী আমলী চার নম্বর আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আদালত বাগমারা থানার ওসিকে মামলাটি গ্রহণের মাধ্যমে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এলাকার এক প্রভাবশালী আ’লীগ নেতার ছত্রছায়ায় তাহেরপুর এলাকার পিক্কা মন্ডল ও টিক্কা মন্ডলসহ তার বাহিনীর লোকজনেরা এমন ঘটনা ঘটাচ্ছে বলে মামলার বাদী লাভলীসহ তার তিন বোন ও ভাই গতকাল শনিবার বিকেলে বাগমারা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন।
তাহেপুর পৌরসভার বাসিন্দা মৃত কছিম উদ্দীন সরদারের মৃত্যুর পর ধর্মীয় বিধান মতে তার রেকর্ডীয় সম্পত্তির মালিক হন চার মেয়ে ও তিন ছেলে। তারা ওই সম্পত্তিতে বাড়িঘর নির্মাণ করে বসবাস করে আসছিল। মেয়েগুলো বাইরে বিয়ে হলে কছিম উদ্দীনের তিন ছেলে ওই সম্পত্তিতে বসবাস করে। তাহেরপুর পৌরসভার প্রভাবশালী পিক্কা মন্ডল ও টিক্কা মন্ডল কৌশল খাটিয়ে একই সম্পত্তির অন্যকে মালিক সাজিয়ে নিজেদের নামে রেজিস্ট্রি করে নেয়। দলিলটি খারিজে দিলে কছিম উদ্দীনের ছেলে মেয়েরা জানতে পারেন একং সহকারী কমিশনার (ভূমি) বাগমারা বরাবর খারিজ স্থগিতের আবেদন করেন। তৎকালীন তাহেরপুরের এক আ’লীগ নেতার প্রভাবে ও ভূমি অফিসের যোগসাজসে উৎকোচের বিনিময়ে জমিটি পিক্কা ও টিক্কা মন্ডলের নামে খারিজ করে দেয়। নিরুপায় হয়ে কছিম উদ্দীনের মেয়ে লাভলী বেগম সেই সময় রাজশাহী জজ আদালতে আসামীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়ের পরপরই পিক্কা মন্ডল ও টিক্কা মন্ডল উক্ত জমিতে পাকা বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরু করেন। জোরপূর্বক বাড়ি নির্মাণের চেষ্টা করলে বাদীপক্ষ আদালতে ১৪৪ ধারার মামলা দায়ের করেন। আদালত বাড়ি নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা দিলে বাড়ির কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এমন ঘটনায় পিক্কা মন্ডল ও টিক্কা মন্ডল স্থানীয় প্রভাবশালী আ’লীগ নেতার আশ্রয় নেয়। সুযোগ বুঝে চলতি বছরের ৪ জানুয়ারি আ’লীগ নেতার নির্দেশে পিক্কা মন্ডল ও টিক্কা মন্ডল তার বাহিনীর লোকজন নিয়ে বাদিদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে গুড়িয়ে দেয়। বর্তমানে তাদের বাড়িতে বসবাস করার পরিবেশ নেই বলেও তারা সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে তাহেরপুর পৌরসভার অভিযুক্ত পিক্কা মন্ডলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, আমরা ক্রয়সূত্রে জমির মালিক। আমরা আমাদের জমি দখল করেছি, কারো বাড়িঘরে হামলা করিনি বলে তিনি জানিয়েছেন।
অপরদিকে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান বলেন, আদালত থেকে পিক্কা ও টিক্কাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ এসেছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ