বাগমারায় প্রেমিকের বাড়িতে অন্তঃসত্বা প্রেমিকার অনশন

আপডেট: June 26, 2020, 10:31 pm

বাগমারা প্রতিনিধি:


রাজশাহীর বাগমারায় বিয়ের দাবিতে এক প্রেমিকের বাড়িতে অন্তঃসত্বা এক প্রেমিকা গত দুই দিন ধরে অনশন করে আছে বলে জানা গেছে। তাকে কোন কিছু খাওয়ানো যাচ্ছে না এবং সে স্থান ত্যাগও করছে না। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য বিরাজ করছে। অবশেষে বাগমারা থানা পুলিশ ওই মেয়েটিকে উদ্ধার করে পরিবারের জিম্মায় দিয়ে আত্রাই থানায় অভিযোগ দায়ের করতে বলেছে।

 

 

 

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বাগমারার ঝিকরা ইউনিয়নের কুদাপাড়া গ্রামের আবদুল করিম মন্ডলের ছেলে নাটোর সরকারি এনএস কলেজের ছাত্র মাসুদ রানার (২২) সঙ্গে গত ছয় মাস আগে আত্রাই উপজেলার পতিসর গ্রামের এক দশম শ্রেণি পড়ুয়া ছাত্রীর পরিচয় হয়। সে সময় আত্রাই এলাকার একটি ইসলামী জালসায় গিয়ে তাদের প্রথম পরিচয় হয়। পরে এই পরিচয় থেকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে তাদের মধ্যে। দীর্ঘ ছয় মাস ধরে চলে তাদের এই সম্পর্ক। এরই মাঝে ছাত্রিটি অন্তঃসত্বা হয়ে পড়ে। বিষয়টি ওই ছাত্রী মাসুদ রানাকে জানালে সে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে এবং পেটের সন্তানকে নষ্ট করার পরামর্শ দিয়ে যোগাযোগ বন্ধ রাখে। অবশেষে উপায়ান্তর না পেয়ে ওই ছাত্রী গত বৃহস্পতিবার সকালে চলে আসে কুদাপাড়া গ্রামে। কুদাপাড়া গ্রামের মাসুদ রানার বাড়িতে গিয়ে সে অন্তঃসত্বার বিষয়টি জানিয়ে তাকে বিয়ে করার দাবি জানালে সুযোগ বুঝে মাসুদ রানা তার বাড়ি থেকে কৌশলে পালিয়ে যায়। এই অবস্থায় অনড় ওই ছাত্রী সেখানে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করে।

শুক্রবার (২৬জুন) পর্যন্ত তাকে কেউ কোন কিছু খাওয়াতেও পারেনি। সে অবিরাম অনশন চালাতে থাকে। এ দিকে বাগমারা থানার পুলিশ এই বিষয়টি অবগত হলে তারা শুক্রবার ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে তার পরিবারের জিম্মায় হস্তান্তর করে।
যোগাযোগ করা হলে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান জানান, যেহেতু ভিকটিমের বাড়ি আত্রাই উপজেলায় এবং ঘটনাস্থলও আত্রাই। তাই এ বিষয়ে তাদেরকে আত্রাই থানায় অভিযোগ দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।