বাগমারা ও পত্নিতলায় দুই মাদকসেবী ছেলেকে পুলিশে দিলেন মা-বাবা

আপডেট: মার্চ ১৭, ২০১৭, ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা ও পতœীতলা প্রতিনিধি


রাজশাহীর বাগমারা ও নওগাঁর পতœীতলায় ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ ও শারীরিক, মানসিকভাবে নির্যাতিত হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে ছেলের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন বাব-মা।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, বাগমারায় মা রশিদা বেগমের লিখিত অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে ওই বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাগমারা থানাকে নির্দেশ দেয়া হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশ পেয়ে বাগমারা থানা পুলিশের একটি দল উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের কামনগর এলাকায় অভিযান চালিয়ে মায়ের দায়েরকৃত অভিযোগপত্রে উল্লেখিত মাদকসেবী ছেলে নাজমুল হোসাইনকে (৩৫) আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করে। আটককৃত নাজমুল হোসাইন কামনগর গ্রামের পল্লি চিকিৎসক সেকেন্দার আলীর ছেলে। আটককৃত নাজমুল হোসাইনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাছরিন আক্তারের কাছে নিজের দোষ স্বীকার করলে আদালত তাকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান করেন। এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাছরিন আক্তার জানান, আদালতে আসামি তার নিজের দোষ স্বীকার করায় তাকে ৬ মাসের কারাদ- প্রদান করা হয়েছে। অপরদিকে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাছিম আহম্মেদ জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালতে এক মাদকসেবীর কারাদ- হয়েছে। কারাদ-প্রাপ্ত আসামিকে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় উপজেলার নজিপুর পৌর এলাকার চক জয়রাম গ্রামের শ্রী জগদীশ চন্দ্রের ছেলে আম্বরিশ রবিদাস অরফে বুদু (২৮) বিভিন্ন মরণ নেশা মাদক সেবন করে আসছেন। তাই নিজ ছেলেকে মাদক নেশার জগৎ হতে রক্ষা করতে ও ভবিষ্যৎ জীবনের কথা চিন্তা করে নিজ ছেলেকে পুলিশের হাতে তুলে দেন। পরে থানা পুলিশ ওই মাদকসেবীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯৯০ এর ২২ (খ) ধারায় মাদকসেবী আম্বরিশ রবিদাসকে তিন (০৩) মাসের বিনাশ্রম করাদ- প্রদান করেন। পতœীতলা থানার ওসি আজিম উদ্দীন জানান, আম্বরিশ রবিদাস নামের মাদকসেবীকে নওগাঁ জেলাহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ