বাগাতিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স || জ্বালানি বরাদ্দ না থাকায় অ্যাম্বুলেন্স সেবা বন্ধ

আপডেট: এপ্রিল ২৩, ২০১৭, ১২:১৪ পূর্বাহ্ণ

বাগাতিপাড়া সংবাদদাতা


নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জ্বালানি বরাদ্দ না থাকায় সাত দিন ধরে অ্যাম্বুলেন্স সেবা বন্ধ আছে। ফলে রোগিদের দুর্ভোগ চরমে পৌঁচেছে। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানালেও বরাদ্দ পাওয়া যায় নি। কবে নাগাদ এ বরাদ্দ পাওয়া যাবে তাও নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ভুক্তভোগী এজাজুল হক জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় তার স্বজন আনোয়ারা (৭০) স্ট্রোকে আক্রান্ত হলে স¦াস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক হামিদুলক রোগিকে দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। অ্যাম্বুলেন্স সেবা বন্ধ থাকায় ওই অবস্থায় মাইক্রোবাস ভাড়া করেন রোগির স্বজনরা। এদিকে রোগির জন্য অক্সিজেন প্রয়োজন থাকায় হাসপাতাল থেকে বন্ড দিয়ে সিলিন্ডার তুলতে হয় মাইক্রোবাসে। আর এসব করতে পার হয়ে যায় দেড় ঘণ্টা। অবশেষে আনোয়ারা রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা গেলেও কিছু সময় পর তিনি মারা যান। এছাড়াও গত ১৮ এপ্রিল শুকরিয়া নামের এক শিশু রোগি ও লুৎফর রহমান নামের অপর রোগিকে অ্যাম্বুলেন্স সেবা না পেয়ে নিতে হয় প্রাইভেট মাইক্রোবাসে।
অ্যাম্বুলেন্স চালক আবদুস সালাম বলেন, গত তিন মাসের প্রায় তিন লক্ষাধিক টাকার বিল বকেয়া আছে তেল পাম্পে। একদিকে বরাদ্দ না থাকায় ওই বিল পরিশোধ করা যায় নি। এ কারণে অ্যাম্বুলেন্স বন্ধ রাখা হয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আমিনুল ইসলাম বলেন, চলতি মাসের ১০ তারিখ থেকে জ¦ালানি বরাদ্দ না থাকায় অ্যাম্বুলেন্স সেবা বন্ধ থাকে। তবে রোগিদের নিজ খরচে ১৭ তারিখ পর্যন্ত এ সেবা চালু রাখা গেলেও পরে অফিসিয়াল কারণে একদম বন্ধ রাখা হয়। কবে নাগাদ পেতে পারে জ¦ালানি বরাদ্দ এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক বরাবর লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। তবে কবে জ¦ালানি বরাদ্দ আসবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেন নি তিনি।
তবে মুমূর্ষ রোগিদের দ্রুত উন্নত সেবা নিতে নাটোর সদরসহ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পৌঁছাতে রোগিদের দুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালুর দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।