বাঘায় টিসিবি পণ্যের জন্য লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত তিন

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২৪, ৯:১৫ অপরাহ্ণ


বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি:বাঘায় বাংলাদেশ ট্রেডিং কর্পোরেশন (টিসিবি) পণ্য নেয়ার জন্য লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে ৩ জন আহত হয়েছেন। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন পরিষদে এই ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়, টিসিবি কার্ডধারীরা পণ্য নিতে আসেন। এ সময় হেদাপতিপাড়া ও ভারালীপাড়া গ্রামের কার্ডধারীরা লাইনে দাঁড়িয়ে পণ্য নিচ্ছিলেন। ভারালীপাড়ার রাজিব হোসেন লাইনে একজনের আগে যেতে চায়। এতে হেদাতিপাড়ার গোলাম রাব্বি কাজল আগে যেতে নিষেধ করেন। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে তর্কবিতর্ক শুরু হয়। এক পর্যায়ে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে খবর ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষই বাঁশের লাঠি, হাঁসুয়া নিয়ে একে অপরের উপর ধাওয়া করে। পরে ভারালীপাড়ার রাজিবের নেতৃত্বে বাউসা ইউনিয়ন আ’লীগের কার্যালয় ভাংচুর করা হয়।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন- হেদাতিপাড়ার নফেল প্রামানিকের ছেলে গোলাম রাব্বি কাজল (২৫), আবদুল মজিদ প্রামানিকের ছেলে খোরশেদ আলম (৪০), সুরাপ আলী প্রামানিকের ছেলে হুমায়ন কবির (৪০)। আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্র ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বাউসা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার মহসিন আলী বলেন, টিসিবি পণ্য নেয়ার জন্য লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে প্রথমে তর্কবিতর্ক হয়। এ নিয়ে চেয়ারম্যান ও স্থানীয়দের নিয়ে মিমাংসায় বসা হয়। এ সময় ভারালীপাড়ার রাজিবের নেতৃত্বে ১৫/২০ জনের একটি দল এসে হেদাতিপাড়ার লোকজনের উপর হামলা করে আ’লীগ অফিস ভাংচুর করেছে।

ভারালীপাড়ার রাজিব দাবি করেন হেদাতিপাড়ার কার্ডধারীরা লাইনের আগে যাওয়াকে কেন্দ্র করে তর্কবির্তকের এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়েছে।
বাঘা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, টিসিবি পণ্য নেয়ার জন্য লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এ বিষয়ে অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ