বাঘায় দুর্বৃত্তের হামলায় আহত শিক্ষক হাসপাতালে কাতরাচ্ছে

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২৪, ১:৫৮ অপরাহ্ণ


বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি :বাঘায় দুর্বৃত্তের হামলায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সহকারি প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা কাতরাচ্ছেন। এক ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে বিদ্যালয়ের তালা ভেঙ্গে তার উপর হামলা করা হয়। এ হামলায় তার মাথায় ও ডান হাতের বাহু, ডান হাতের দুটি আগুলে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে এক সপ্তাহ থেকে হাসপাতালের বিছানায় পড়ে রয়েছেন।

জানা যায়, উপজেলার পদ্মার মধ্যে চকরাজাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা ৮ ফেব্রুয়ারি নবম শ্রেণির ক্লাসে যান। এ সময় শিক্ষার্থীরা সুন্দরবন পিকনিকে যাওয়ার জন্য আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সুন্দরবন এলাকায় বানরের আক্রমণ আছে বলে শিক্ষক জানান।

বানর কিভাবে আক্রমণ করে চেয়ার থেকে দাঁড়িয়ে অঙ্গভঙ্গিমায় শিক্ষক হাত নেড়ে শিক্ষার্থীদের বুঝানোর সময়ে এক ছাত্রীর ওড়নায় অসাবধানতায় স্পর্শ লাগে। এতে ছাত্রী ক্ষিপ্ত হয়ে তার অভিভাবকদের জানালে দূর্বৃত্তরা অফিস কক্ষের তালা ভেঙ্গে বাঁশের লাঠি ও হকিস্টিক দিয়ে পিটিয়ে জখম করা হয়।

পরে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের ভর্তি করা হয়। সেখানে চারদিন চিকিৎসা নিয়েও তার অবস্থা বেগতিক দেখে দায়িত্বরত চিকিৎসক মঙ্গলবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে প্রেরণ করেন।
এ ঘটনার পরের দিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে থানায় একটি মামলা করা হয়েছে। ঘটনার দুইদিন পর শিক্ষার্থীরা ১১ ফেব্রুয়ারি বিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে।

প্রধান শিক্ষক আবদুস সাত্তার বলেন, অফিসের তালা ভেঙ্গে দূর্বৃত্তরা বাঁশের লাঠি ও হকিস্টিক নিয়ে হামলা করে। এ হামলার পর থেকে এক সপ্তাহ যাবত হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ডাক্তার বলেছেন মাথায় আঘাতের কারনে রক্ত জমাটবদ্ধ হয়ে গেছে। তিনি কিছু মনে করতে পারছেনা। তার অবস্থা খুব ভাল না।
বাঘা থানার সহকারি পরিদর্শক (এসআই) কামরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ