বাঘায় ৫০০ বছরের ঐতিহ্যের ইদমেলা এবারও অনিশ্চিত!

আপডেট: মার্চ ৩০, ২০২৪, ১২:৩১ অপরাহ্ণ

বাঘায় ৫০০ বছরের ঐতিহ্যের ইদমেলা এবারও অনিশ্চিত!

আমানুল হক আমান, বাঘা:


বাঘায় ৫০০ বছরের ঐতিহ্যের ইদমেলা নিয়ে এবারও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্পষ্টভাবে কোনো কিছু জানান হচ্ছে না। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান ইদমেলা হওয়া না হওয়া নিয়ে শনিবার (৩০ মার্চ) পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

জানা গেছে, ৫০০ বছর পূর্বে বাগদাদ থেকে হজরত শাহদৌলা (রা.) পাঁচ সঙ্গীসহ বাঘায় এসেছিলেন ইসলাম ধর্ম প্রচারের জন্য। বসবাস শুরু করেন রাজশাহী শহর থেকে ৫০ কিলোমিটার পূর্ব-দক্ষিণ কোণে পদ্মানদীতীরের বাঘার কসবে। বাদশাহ নাসির উদ্দিন সে সময় তাঁর জন্য এখানে বিশাল একটি শাহী মসজিদ তৈরি করে দেন। মসজিদের পাশে ৫২ বিঘা জমিতে বিশাল দিঘি খনন করেন। কথিত আছে মনোবাসনা পূর্ণের জন্য মানুষ ইদের সময় এ দিঘিতে গোসল করতে আসেন। এছাড়া অনুষ্ঠিত হয় বিশাল আকারের ইদের জামায়াত। সেই সাথে সু-বিশাল এলাকা জুড়ে বসে ইদমেলা।

বাঘা ওয়াকফ্ এস্টেটের মোতাওয়ালি খন্দকার মনছুরুল ইসলাম রইশ জানান, আবদুল আব্বাসী (র.) বংশের হযরত শাহ্ মোয়াজ্জেম ওরফে শাহদৌলা (রহ.) ও তার ছেলে হযরত আব্দুল হামিদ দানিশমন্দ (রহ.) ওফাৎ দিবসে ধর্মীয় ওরস মোবারক উৎসবকে কেন্দ্র করে সাধকদের সাধনার পীঠস্থান হিসেবে ওয়াকফ এস্টেটের এলাকা জুড়ে ৫০০ বছর ধরে ইদুল ফিতরের দিন থেকে অনুষ্ঠিত হয় ইদমেলা। আমি কিছু জানিনা। এই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি জেলা প্রশাসক। তিনিই বলতে পারবেন মেলা হবে কী হবে না।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম বলেন, জেলা প্রশাসক মহোদয় মেলার বিষয়ে আমাকে কোনো সিদ্ধান্ত দেননি। তবে ইদমেলা হওয়া না হওয়া নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি। সময় আছে, মেলা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, এই মেলা সর্বশেষ ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ১৫ দিনের জন্য ১০ শর্তে সর্বশেষ ২১ লক্ষ ৫২ হাজার টাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে ইজারা প্রদান করা হয়েছিল। করোনা ভাইরাসের কারণে মেলা অনুষ্ঠিত হয়নি

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ