বাঘার দরিদ্র মেধাবী যমজ দুই ভাইয়ের পাশে পুনাক

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২২, ৯:৫৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) রাজশাহী শাখার উদ্যোগে বাঘার যমজ দুই মেধাবী শিক্ষার্থীকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫ টায় রাজশাহী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মো ইফতে খায়ের আলম, রাজশাহী জেলা পুলিশের অন্যান্য সিনিয়র অফিসারগণ, বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ, টিম পজিটিভ বাংলাদেশ (টিপিবি) রাজশাহী শাখার সদস্য মো. হাসান রেজা, রাকিব হোসেন ও শিক্ষার্থীদ্বয়ের মা মোসা. রুনা লায়লা।

উল্লেখ্য, রাজশাহী বাঘা থানাধীন মনিগ্রামের রাজন ও সাজন যমজ দুই ভাই এবং তাদের পিতার নাম মো. আব্দুস সামাদ। আব্দুস সামাদ গত পাঁচ বছর ধরে প্যারালাইজড হয়ে শারীরিকভাবে অসুস্থ অবস্থায় রয়েছেন। তার স্ত্রীসহ যমজ দুই ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে সংসার। আব্দুস সামাদ এক সময় কাঠমিস্ত্রীর কাজ করে সংসার চালাতেন।

শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে যাওয়ায় পরিবারটি আর্থিকভাবে অসচ্ছল হয়ে পড়ে। রাজন ও সাজন ২০২১ সালে মনিগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগে ‘এ প্লাস’ (অ+ ) পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। তারা বর্তমানে রাজশাহী ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড স্কুল এন্ড কলেজে এইচএসসিতে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছে।

কিন্তু আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে কলেজে ভর্তি করা ও তাদের পড়াশুনার খরচ চালানো পরিবারটির পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়েছে। বিষয়টি টিম পজিটিভ বাংলাদেশ (টিপিবি) নামক একটি সামাজিক সংগঠনের নজরে আসলে উক্ত সংগঠনের সমন্বয়ক গোলাম রাব্বানী অসচ্ছল পরিবারের সেই যমজ দুই মেধাবী শিক্ষার্থীকে সহযোগিতা করার বিষয়ে পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করেন।

টিম পজিটিভ বাংলাদেশ (টিপিবি) মূলত একটি সামাজিক সংগঠন যেটি দেশব্যাপী ইতিবাচক, মানবিক ও সামাজিক কাজের প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করে থাকে। এরই প্রেক্ষিতে আর্থিকভাবে অসচ্ছল রাজশাহীর বাঘার এই পরিবারের যমজ দুই মেধাবী শিক্ষার্থী যাতে নির্বিঘ্নে পড়াশুনা চালিয়ে যেতে পারে সেই মানবিক দৃষ্টিকোণ হতে অসচ্ছল পরিবারটির পাশে দাঁড়িয়েছে পুনাক, রাজশাহী জেলা শাখা। ভবিষ্যতেও তাদের পড়াশুনার বিষয়ে পুনাক, রাজশাহী জেলা শাখার সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে জানান পুলিশ সুপার।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ