বাঘায় একটি চিংডির ওজন ১৫০ গ্রাম

আপডেট: জানুয়ারি ১৩, ২০১৭, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

বাঘা প্রতিনিধি 


     
রাজশাহীর বাঘায় বাণিজ্যিকভাবে গলদা চিংডির চাষ শুরু হয়েছে। তবে প্রথমবারের মতো উন্নয়ন মেলায় উপজেলা মৎস্য অধিদফতরের পক্ষ থেকে এই চিংডি প্রদর্শন করা হয়। একটি মাছের ওজন হয়েছে ১৫০ গ্রাম।
জানা যায়, উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শফিক তাঁর নিজস্ব ৪০ শতাংশ জমির উপর পুকুরে মে মাসে রুই ও কাতলার সাথে চিংড়ি মাছের পোনা ছাড়ে। এই চিংড়ি সাড়ে ছয় মাসের ব্যধানে একটির ওজন হয়েছে ১২০ গ্রাম থেকে ১৫০ গ্রাম। তবে এই পুকুর থেকে ইতিমধ্যে ৬৫০ টাকা প্রতি কেজি দরে ৬২ কেজি চিংড়ি স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করেন। তাঁর পুকুরে আরো ২৫ থেকে ৩০ কেজি চিংড়ি আছে বলে জানা গেছে।
চিংড়ি চাষী বাউসা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শফিক বলেন, উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরের সহযোগিতায় রুই ও কাতলার সাথে পুকুরে চিংড়ি মাছের পোনা ছাড়া হয়। একই সাথে পরিচর্যা করা হয়। আলাদাভাবে যন্ত্র নেওয়ার প্রয়োজন হয়নি। তবে আশানুরুপ ফলন হয়েছে। আমার দেখাদেখি স্থানীয় মাছ চাষীরা অনেকেই উৎসাহ হয়ে উঠছে চিংড়ি চাষে।
উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিউর রহমান শফি বলেন, চিংড়ি মাছ সুসাধু ও পুষ্টি কর। এই মাছ উপজেলায় চাষ শরু হয়েছে মেলায় প্রদর্শনীতে দেখলাম। তবে বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা হলে কম দামে পাওয়া যাবে। ফলে সাধারণ মানুষ খেতে পারবে।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম বলেন, প্রথমবারের মতো চিংড়ি চাষ শুরু করা হয়েছে। এই চিংড়ি উন্নয়ন মেলায় প্রদর্শন করা হয়। আশা করছি আগামীতে মাছ চাষীরা অনেকই এই চিংড়ি চাষে আগ্রহ হয়ে উঠবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ