বাঘায় ঐতিহাসিক ঈদ মেলায় কেনাকাটার ধুম

আপডেট: জুলাই ১, ২০১৭, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

আমানুল হক আমান, বাঘা


রাজশাহীর বাঘায় প্রায় ৫শ বছরের ঐতিহাসিক ঈদ মেলা উপলক্ষে জমে উঠেছে কেনাকাটা। ক্রেতাদের ভিড়ে মুখরিত মেলায় বসা দোকানগুলোতে। সব বয়সের নারী-পুরুষ তাদের পছন্দের জিনিস কিনছেন। মেলায় বসা হরেক রকমের শিশুদের খেলনা দোকানগুলোতে তরুণ-তরুণীরা ভিড় জমাচ্ছে।
গতকাল শুক্রবার সরেজমিনে পুরুষদের চেয়ে নারীদের ভিড় বেশি লক্ষ্য করা গেছে। তরুন-তরুণীরা কেনাকাটায় বেশি ব্যস্ত। বিশেষ করে তরুন-তরুণীরা নতুন নতুন বিভিন্ন প্রশাধনীর খোঁজে ব্যস্ত সময় কাটাতে দেখা গেছে।
মেলা ঘুরতে ও কেনাকাটা করতে আসা আড়ানীর সালমা বেগম, শান্তনা খাতুন, বেলা বেগম, আরিফুল রহমান বলেন, গত বছরের চেয়ে এ বছর নিত্যনতুন ডিজাইনের পণ্য সামগ্রীর সমাহার ঘটেছে। কিন্তু দাম অনেক বেশি হওয়ায় ক্রয় করা নাগালের বাইরে।
পুটিয়ার ঝলমলিয়া থেকে আশা বেলুন বিক্রেতা আসলাম আলী বলেন, রমজানের শেষ সপ্তা থেকেই এসেছি এই মেলায়। কেনাকাটা ভালো হচ্ছে। গত বছরের চেয়ে দাম বেড়ে গেছে। তা সত্তেও ক্রেতারা তাদের সাধ্যমতো কিনছেন পছন্দের বিভিন্ন প্রশাধনী। সব মিলিয়ে বেচাকেনা ভালো হচ্ছে।
দিঘা কলেজের শিক্ষক তোফাজ্জল কবীর, মিলিক বাঘা গ্রামের লিপি বেগম, ছনি আহসান বেলি বলেন, ব্যবসায়ীরা তাদের পণ্যের দাম বাড়িয়ে চলেছে। ফলে বাজেট ঘাটতির সঙ্গে সঙ্গে বিপাকে পড়তে হচ্ছে অনেককেই।
অপরদিকে ঈদ মেলাকে কেন্দ্র করে বসেছে, সার্কাস-যাত্রা, মৃত্যুকুপ, কার ও মোটরসাইকেল প্যান্ডেলসহ প্রায় অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন খেলাধূলা নিয়ে যোগ দিয়েছে এই মেলায়। প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও ২০ দিনব্যাপী চলবে এ মেলা।
বাঘা ওয়াকফ এস্টেটের মোতয়ালি¬ খন্দকার মনছুরুল ইসলাম রইশ বলেন, আব্বাসীয় বংশের হযরত শাহ্ মোয়াজ্জেম ওরফে শাহদৌলা (রহ.) ও তার ছেলে হযরত আবদুল হামিদ দানিশমন্দ (রহ.) ওফাত দিবসে ধর্মীয় ওরস মোবারক উৎসবকে কেন্দ্র করে সাধকদের সাধনার পীঠস্থান হিসেবে ওয়াকফ এস্টেটের এলাকা জুড়ে প্রতি বছর ঈদুল ফিতরের ঈদে অনুষ্ঠিত হয় ঈদ মেলা।
এর আগে ৮ লাখ টাকা জামানত সাপেক্ষে মেলার ইজারায় অংশ নেন এলাকার ১২ জন ব্যবসায়ী। এর মধ্যে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ২৬ লাখ ৬০ হাজার টাকায় ঈদের দিন থেকে ২০ দিনের জন্য ওই মেলা ইজারা দেয়া হয় বাঘা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রহমানকে।
মেলার ইজারাদ বাঘা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রহমান বলেন, শুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে মেলা পরিচালিত হচ্ছে। কোন অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা সব সময় দেখভাল করছেন।
জানতে চাইলে বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী মাহমুদ বলেন, মেলা উপলক্ষে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
মেলা কমিটির সহসভাপতি ও বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুল ইসলাম বলেন, সুষ্ঠু সুন্দর পরিবেশে মেলা চলছে। গত পাঁচদিনে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে নি। এছাড়া সার্বক্ষণিক পুলিশ বাহিনী সতর্ক রয়েছে। তারপরেও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে তাৎক্ষণিক জানানোর জন্য আহবান জানান তিনি। এছাড়া অনৈতিক কোন ঘটনা ঘটলে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ