বাঘায় গরম চায়ে ঝলসে গেলে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র পৃথিবী

আপডেট: অক্টোবর ২৫, ২০২১, ১০:২১ অপরাহ্ণ


বাঘা প্রতিনিধি :


রাজশাহীর বাঘায় গরম চায়ে ঝলসে গেলে পৃথিবী হালদার নামের এক তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রের। এই ঘটনায় তার পিতা মিন্টু হালদার বাদি হয়ে থানায় সোমবার (২৫ অক্টোবর) একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার আড়ানী বাজারের চা বিক্রি করেন মিন্টু হালদার (৪৫)। স্কুলে যাওয়ার আগে তার তৃতীয় শ্রেনীতে পড়া ছেলে পৃথিবী হালদার (১০) দোকানে এসে পিতাকে সহযোগিতা করে। এই সহযোগিতা করতে এসে চা দিতে যায় কাপড় ব্যবসায়ী ইমন হোসেনের দোকানে। এ সময় পাশের দোকানে বসে থাকা সুইট হোসেন (৩৫) ওই শিশুর কাছে চা চায়। আরেক দোকানের অর্ডার আছে বলে চা দিতে দেরি হবে বলে জানায়। সুইট হোসেন শিশুর প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে চায়ের কাপ কেড়ে নিয়ে ওই শিশুর কপালে ছুড়ে মারে। এতে শিশু পৃথিবী হালদারের কপাল, নাক, হাত ঝলসে যায়। সুইট হোসেন আড়ানী পিয়াদাপাড়া গ্রামের সাদু প্রামানিকের ছেলে। ঝলসে যাওয়া শিশুকে উপজেলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে শিশু পৃথিবীর পিতা মিন্টু হালদার বলেন, বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ভাবে বসে আপোশ করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সুইট হোসেন এতে রাজী হয়নি। নিরপায় হয়ে ঘটনার তিন দিন পর থানায় এসে একটি অভিযোগ করেছি।
বাঘা থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন জানান, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।