বাঘায় গৃহবধূকে মারপিট করে টাকা ছিনতাই

আপডেট: জুলাই ১৬, ২০১৭, ১২:৪১ পূর্বাহ্ণ

বাঘা প্রতিনিধি


রাজশাহীর বাঘায় শিখা আক্তার নামে এক গৃহবধূকে মারপিট ও তার শিশু সন্তান মাহি খাতুনকে আছড়ে ফেলে চার লাখ টাকা ছিনতাই করে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করেন বাড়ির মালিক মাহাবুল আলম। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার পাকুড়িয়া মধ্যপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দুর্বৃত্তদের মারপিটে আহত গৃহবধূ শিখা আক্তারকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বাড়ির মালিক মাহাবুল আলম পাশে বেল্লালের মোড়ে পারিবারিক কাজে যায়। এ সুযোগে পাঁচ থেকে ছয় জনের মুখোশধারী একটি দল লোহার রড নিয়ে প্রাচীর টপকিয়ে বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করে প্রথমে গৃহবধূ শিখা আক্তারের কাছে চাবি চায়। সে চাবি দিতে না চাইলে তার দেড় বছর বয়সী মেয়ে মাহি খাতুনকে দুই পা ধরে আছড়ে ফেলে দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। এ অবস্থা দেখে ৯ বছরের আরেক মেয়ে মায়া খাতুন কান্নাকাটি করলে কাপড় দিয়ে তার মুখ বেধে মারপিট করে। তাদের হৈচৈ শুনে পাশের বাড়ি লোকজন ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই দুবৃর্ত্তরা বাক্সের তালা খুলে চার লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়।
পাশের বাড়ি সাহারা বেগম ও সামিয়ারা বেগম বলেন, এসময় পুরুষ মানুষ ছিল না। হৈচৈ শুনে এগিয়ে আসার সময়ে মুখোশধারী কিছু লোককে লোহার রড হাতে নিয়ে বের হয়ে যেতে দেখেছি।
এ বিষয়ে বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী মাহমুদ বলেন, এ ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ