বাঘায় দেড় সপ্তায় ১৮ লাখ টাকার জাল জব্দ

আপডেট: অক্টোবর ২৪, ২০১৬, ১১:৫৪ অপরাহ্ণ


বাঘা প্রতিনিধি
রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পদ্মা নদীতে মা ইলিশ রক্ষার্থে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, নির্বাহী মেজিস্ট্রেট, মৎস্য কর্মকর্তা, পুলিশ ও বিজিবি’র যৌথ অভিযানে ৪০ হাজার মিটার জাল জব্দ করা হয়েছে। জালগুলোর মূল্য প্রায় ১৮ লাখ টাকা। এ জালগুলো উপজেলার মীরগঞ্জ বিজিবি ক্যাম্প ও উপজেলা চত্বরে জনসম্মুখে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত ২২ দিন মা মাছ ধরা সরকারিভাবে নিষেধ ঘোষণা করা হয়েছে। তারপর কিছু অসাধু মাছ শিকারিরা সরকারি নিষেধ অমান্য করে পদ্মায় মা ইলিশ ধরছে। সরকারি ঘোষণার পর থেকে মা ইলিশ রক্ষার্থে নির্বাহী প্রসাশনের অভিযান অব্যাহত রেখেছেন।
গতকাল সোমবার ভোর সাড়ে ৫টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ৫ ঘণ্টা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুল ইসলাম, নির্বাহী মেজিস্ট্রেট সৈয়দ মুরাদ, জুয়েল আহম্মেদ, এএসপি তারিখ দিপু, পিডাব’র ইঞ্জিনিয়ার নাজমুল হাসান হিরা, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা সুভাষ চন্দ্র শাহা, উপজেলা ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম বিজিবি ও বাঘা থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে বাঘা পদ্মা নদীর মীরগঞ্জ, আলাইপুর, কিশোরপুর ও চকরাজাপুর এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ২৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল আটক করা হয়েছে। এই জালগুলোর মূল্যে আড়াই লাখ টাকা।
এছাড়া দেড় সপ্তা রাক্ষুসে জাল ৩০ হাজার মিটার ও কারেন্ট জাল ১০ হাজার মিটিার জাল উদ্ধার করা হয়েছে। জালগুলোর মূল্য প্রায় ১৮ লাখ টাকা।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুল ইসলাম বলেন, কোন অসাধু মৎস্য শিকার ও বিক্রির ইলিশ মাছ ধরতে ও বিক্রি না করতে পারে, সেজন্য অভিযান অব্যহত থাকবে।