বাঘায় মুহূর্তের মধ্যে পদ্মাগর্ভে বিলীন নাজমুলের বাড়ি

আপডেট: অক্টোবর ২০, ২০২৩, ৪:৫৩ অপরাহ্ণ


আমানুল হক আমান, বাঘা (রাজশাহী) :


বাঘায় কালিদাসখালী চরে ৫ কাঠা জমির ওপর বাড়ি করে বসবাস করছিলেন নাজমুল হোসেন বিশ^াস। বাড়ির পশ্চিমে কিছু শাকসবজির আবাদও করেছিলেন। পাশের এলাকায় কাজ করতে গিয়েছিলেন নাজমুল। বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে খবর পেলেন তার বাড়ি পদ্মাগর্ভে চলে গেছে। বাড়ি ফিরে দেখেন টিনের তৈরি দুটি ঘর ও রান্নাঘর পদ্মাগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এর আগে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান স্থানীয়দের ডেকে ঘরের চালা ভেঙ্গে সরিয়ে রেখেছিলেন। নাজমুল বলেন, আমি নিঃশ^ হয়ে গেছি।

নাজমুল আরো বলেন, আমি খুব গরিব মানুষ। অন্যের জমিতে কাজ করে স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ে নিয়ে কোনোমতে খেয়েপরে বাঁচি। পদ্মায় বাড়ি চলে গেল, এখন কথায় থাকবো, কিছুই বুঝতে পারছি না।
চকরাজাপুর ইউনিয়নের চককালিদাখালী চরের ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম বলেন, এ ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ১ হাজার ২৬২ জন। পরিবার সংখ্যা চার শতাধিক। এরমধ্যে নদী ভাঙ্গনে মুখে পড়ে ইতোমধ্যেই দেড় শতাধিক পরিবার বিভিন্নস্থানে চলে গেছেন।

চকরাজাপুর ইউপি চেয়ারম্যান বাবলু দেওয়ান বলেন, নদী ভাঙ্গনের মুখে পওেড় আমরা নিঃস্ব হয়ে গেছি। আমাদের যাওয়ার আর কোনো জায়গা নেই। নদী ভাঙ্গনের বিষয়ে উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আখতার বলেন, নাজমুলের বাড়ি পদ্মায় ভাঙ্গনের বিষয়ে জেনেছি। তাকে আবেদন দিতে বলেছি। বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।