বাঘের মুখ থেকে সঙ্গীকে বাঁচালেন ৪ মৎস্যজীবী

আপডেট: অক্টোবর ১৯, ২০১৬, ১১:৫৬ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক
বাঘের সঙ্গে লড়াই করে প্রাণে বাঁচলেন ৫ মৎস্যজীবী। এঁদের মধ্যে বেশি আহত নিতাই দাসকে চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে নিয়ে আসা হচ্ছে। মঙ্গলবার পাথরপ্রতিমার শিবনগর থেকে ৫ মৎস্যজীবীর দল কলস নদীর ধারে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন। সারা রাত মাছ ধরার পর, সেই নদীতেই বুধবার সকালেও জাল ফেলেছিলেন তাঁরা। জঙ্গলের কাছে নদীর পাড় থেকে খানিকটা দূরে নৌকায় ছিলেন ওই ৫ মৎস্যজীবী। জলে জালটি আটকে যাওয়ায় মৎস্যজীবীদের মধ্যে বছর ৩০ এর নিতাই দাস জলে নেমে জালটি ছাড়াতে যায়। সেই সময় জঙ্গল থেকে  একটি বাঘ বেরিয়ে এসে তাঁকে আক্রমণ করে।

 

 

শিকারের জন্যই বাঘটি ওত পেতে বসেছিল। বাঘটি নিতাইয়ের ওপর হামলা করতেই, তিনি চিৎকার করে তাঁর সঙ্গীদের ডাকেন। নিতাইয়ের চিৎকার শুনে তাঁর সঙ্গীরা নৌকা থেকে দ্রুত ছুটে আসেন। শুরু হয়ে যায় নিতাইকে বাঘের মুখ থেকে ছাড়ানোর লড়াই। মিনিট ১৫ ধরে বাঘে–মানুষে লড়াই চলে। নৌকার দাঁড় দিয়ে বারবার বাঘটিকে আঘাত করলে, বাঘটি জঙ্গলে পালিয়ে যায়। আহত নিতাইকে ধরাধরি করে তাঁর সঙ্গীরা নৌকোয় তোলেন। নিতাইয়ের শরীরে বাঘের থাবায় গভীর ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে। চিকিৎসার জন্য এদিন নিতাইকে চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে নিয়ে আসা হচ্ছে।- আজকাল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ