বাজেটে রাজশাহীর জন্য বিশেষ বরাদ্দের দাবি

আপডেট: মার্চ ২২, ২০১৭, ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


১৪ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে নগরীল জিরো পয়েন্টে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ মানব বন্ধন করে – সোনার দেশ

রাজশাহী রেশম কারখানা চালু, গঙ্গা ব্যারেজ নির্মাণ, উত্তর রাজশাহী সেচ প্রকল্প বাস্তবায়ন, রাজশাহীর সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ নিশ্চিত ও সিএনজি স্টেশন স্থাপনসহ রাজশাহীর উন্নয়নে ১৪ দফা দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ।
গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে অনুষ্ঠিত এ কর্মসূচি থেকে অবিলম্বে এসব দাবি বাস্তবায়নের জন্য আগামী অর্থ বছরের বাজেটে বিশেষ অর্থ বরাদ্দের দাবি জানানো হয়।
বক্তারা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এসব দাবি নিয়ে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ রাজপথে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। তবে বারবার রাজশাহীকে উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। তাই আগামী জাতীয় বাজেটেই যাতে রাজশাহী উন্নয়নে বিশেষ বরাদ্দ রাখা হয় এজন্য প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।
মানববন্ধন চলাকালীন সমাবেশে বক্তারা বলেন, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের উত্থাপিত ১৪ দফা দাবি বাস্তবায়ন হলে রাজশাহীর সার্বিক উন্নয়নে প্রতিফলন ঘটবে। বক্তারা বলেন, রাজশাহী জেলার দক্ষিণ-পূর্ব পাশ ঘেষে পদ্মানদী প্রায় ৭০ কিমি দৈর্ঘ্যে বিস্তৃত। কৃষিভিত্তিক উত্তরাঞ্চলের মানুষ পানির বড়ই কষ্টে আছে। ভূ-উপরিস্থ পানির ব্যবহার ছাড়া বরেন্দ্র অঞ্চলের কৃষি বিপ্লব ও এ অঞ্চলের মানুষের আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়ন সম্ভব নয়।
এছাড়া উত্তর রাজশাহী সেচ প্রকল্প, বন্ধ গ্যাস লাইন সংযোগ চালু, সিএনজি পাম্প স্টেশন স্থাপন, রাজশাহী থেকে চট্রগ্রাম সরাসরি ট্রেন সার্ভিস চালু করন, আব্দুলপুর-রাজশাহী-রহনপুর ডুয়েল গেজ রেল লাইন নির্মাণ, সরকারি হাসপাতালে জনগণের জন্য জনবান্ধব চিকিৎসাসেবার মানোন্নয়ন, একনেকে অনুমোদিত রাজশাহী চিকিৎসা বিশ^বিদ্যালয় বাস্তবায়ন, ভূখণ্ড রক্ষায় স্থ’ায়ী নদী তীর প্রতিরক্ষা, কৃষিভিত্তিক ইপিজেড প্রতিষ্ঠা, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, ক্রিকেট টেষ্ট ভেন্যু স্থাপন ও ৫ তারকা হোটেল নির্মাণ, পদ্মা নদীর চরে সরকারি ভাবে অর্থনৈতিক জোন স্থাপন, আম, আলু, টমেটোসহ অন্যান্য ফল সংরক্ষণে কোল্ড ষ্টোরেজ স্থাপন এবং নারী শিল্পোদ্যোক্তাদের বিশেষ ঋণ সহায়তার দাবি জানান।
রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন-সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. জামাত খান, সাংগাঠনিক সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুল মান্নান, উপদেষ্টা মুস্তাফিজুর রহমান খান, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মল কমিটির রাজশাহীর সভাপতি শাহজাহান আলী বরজাহান, ব্যবসায়ী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার আলী, মহিলা পরিষদের জেলা সভাপতি কল্পনা রায় বক্তব্য দেন।
এ ছাড়াও নারী উদ্যোক্তা সেলিনা বেগম, অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু, বেনেতি ব্যবসায়ী সমিতির সহসভাপতি মহেষ চন্দ্র সরকার, নাচোল উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবু তাহের খোকন, পরিবেশবিদ মিজানুর রহমান, অধ্যাপক লুৎফর রহমান, সমাজসেবী সামশুল ইসলাম বাদশা, দিগন্ত প্রসারী সংঘের আব্দুল মতিন, রেস্তোরা মালিক সমিতির সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মামুন-অর-রশিদ ও ক্যাবল টিভি দর্শক ফোরামের কেন্দ্রীয় মহাসচিব শাহাদৎ হোসেন মুন্না, রাজশাহী কলেজ জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মাকসুদ উল্লাহসহ নানা সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সমাবেশে বক্তব্য দেন।