বাপ্পীর মৃত্যু নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া ৩৩ ঘণ্টা পর পদ্মায় নৌকা ডুবির লাশ উদ্ধার

আপডেট: জুন ৬, ২০২০, ৩:০০ অপরাহ্ণ

চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি:


অবশেষে ৩৩ ঘণ্টা পরে চারঘাটে মোক্তারপুর এলাকায় পদ্মানদীতে ডুবে যাওয়া নিখোঁজ ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। মডেল থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, চারঘাট পৌরসভার চকমোক্তারপুর এলাকার বাবলুর ছেলে শাহারিয়ার কবীর বাপ্পী রহমান (১৮) গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে গেলে নৌকা ডুবে এই ঘটনা ঘটে। শুক্রবার (৫ জুন) দিনভর অনেক খোঁজাখুজি করেও ডুবে যাওয়া ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করতে পারেনি। উদ্ধার করতে না পেরে উদ্ধারকাজ স্থগিত করেন।
এদিকে শনিবার (৬ জুন) সকালে এলাকাবাসী পদ্মানদীতে একটি লাশ ভাসতে দেখে বাপ্পীর বাড়িতে সংবাদ দিলে তার পিতাসহ পরিবারের লোকজন ছুটে এসে লাশটি দেখে শনাক্ত করেন তার পিতা বাবুল।
খবর পেয়ে চারঘাট মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে ¯্রতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
এব্যাপারে জানতে চাইলে বাপ্পীর পিতা বাবুল স্থানীয় সাংবাদিককের বলেন, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে আমার ছেলে পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। তারপর থেকে অনেক খোঁজাখুজি করতে থাকি। শনিবার সকালে লোকমুখে খবর পেয়ে পদ্মা নদীর ধারে এসে লাশ দেখে চিনতে পারি যে এটা আমার ছেলের লাশ। এদিকে বাপ্পীকে নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। এলাকার অসমর্থিত একটি সূত্র বলছে বাপ্পী আসলে একজন মাছ ব্যবসায়ী নাকি মাদক ব্যবসায়ী ?
এব্যাপারে চারঘাট মডেল থানার ওসি সমিত কুমার কুন্ড বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বাপ্পী মাছ ধরতে গিয়ে নৌকাডুবে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছে বলে তার পিতা লিখিতভাবে আমাদেরকে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ