বাবুডাইং এ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক উৎসব

আপডেট: ডিসেম্বর ১১, ২০২১, ৯:৩৭ অপরাহ্ণ


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:


কোল ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক উৎসবে ঢোল মাদলের তালে তালে মাতৃভাষার গানের সঙ্গে নাচলো ক্ষুদ্র জাতিসত্তার ১০টি সাংস্কৃতিক দল। তাঁদের নাচে-গানে শনিবার (১১ ডিসেম্বর) দিনব্যাপী মুখর হয়ে উঠেছিল বরেন্দ্রভূমির বাবুডাইং আদিবাসী আলোর পাঠশালা প্রাঙ্গণ। কোল ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর উৎসব হলেও এতে সাঁওতাল ও মাহালে জাতিগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক দলগুলো অংশ নেয়।

ছিল আলোচনা অনুষ্ঠানও। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে কোল ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর উৎসব অনুষ্ঠান ও সামাজিক সচেতনতা শীর্ষক মতবিনিময়, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনে সামার ইনস্টিটিউট অব লিংগুইস্টিক (এসআইএল) ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ। এতে সহযোগিতা করে রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী কালচারাল একাডেমি ও ন্যাশনাল এজেন্সি ফর গ্রীণ রিভ্যুলেশন। রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী কালচারাল একাডেমির গবেষণা কর্মকর্তা বেনজামিন টুডুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানে আলম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, নব নির্বাচিত মোহনপুর ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল ইসলাম, এসআইএল’র রাজশাহী এরিয়া ম্যানেজার নিকোলাস মুরমু, এনএজিআর’র প্রকল্প সমন্বয়কারী শ্যামসন সরেন, কোল ক্ষুদ্র জাতিসত্তার নেত্রী রুমালি হাসদা, কোল ছাত্র জয়ন্ত সরেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক আনোয়ার হোসেন।

দ্বিতীয় পর্বে বক্তব্য দেন রাজশাহী বিভাগীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী কালচারাল একাডেমির নির্বাহী কমিটির সদস্য জগেন্দ্রনাথ সরেন, কলিস্তিনা হাঁসদা, চিত্তরঞ্জন সরদার, সুসেন কুমার শ্যামদুয়ার, এনএজিআরের কর্মসূচি কর্মকর্তা প্রদীপ হেমব্রম, প্রথম আলো ট্রাস্ট পরিচালিত বাবুডাইং আলোর পাঠশালার প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক কানাই চন্দ্র দাস, প্রধান শিক্ষক আলী উজ্জামান নূর প্রমূখ। বক্তারা বলেন, বরেন্দ্রভূমির গহিনে বাস করা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কোল সম্প্রদায় উন্নয়নের ধারায় অনেক পিছিয়ে রয়েছে। সরকারি স্বাস্থ্যসেবা থেকে তাঁরা বঞ্চিত। বেশির ভাগই বাস করে খাস জমিতে এবং আশ্রয়ণ প্রকল্পের সুবিধা তাঁরা পাননি। এখানকার শিক্ষার্থীরা শিক্ষাবৃত্তিসহ বিভিন্ন সহায়তা থেকেও বঞ্চিত হয়ে আসছে। এসব সহায়তা পাওয়া তাঁদের সাংবিধানিক অধিকার।

কাউকে পেছনে রেখে প্রকৃত উন্নয়ন সম্ভব নয়। পরে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক দলগুলোকে নিয়ে নাচ-গান প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় এবং শেষে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ