বার্সার আরেকটি আত্মসমর্পণ, কী হবে ভালভার্দের?

আপডেট: জানুয়ারি ১১, ২০২০, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ফুটবল কোচ নিয়ে একটা কথা আছে— ‘কোচ হলো দুই প্রকার-বরখাস্ত হয়েছেন কিংবা বরখাস্ত হতে চলেছেন’। বার্সেলোনার ক্ষেত্রে কথাটা সম্ভবত খাটবে না। গত ১৭ বছর ধরে যে কোচ ছাঁটাইয়ের কোনও নজির নেই কাতালান ক্লাবে। এই রীতিই হয়তো বাঁচিয়ে দিচ্ছে আর্নেস্তো ভালভার্দেকে। নইলে, রোমের অঘটন, লিভারপুল ধাক্কার পর নতুন যোগ হওয়া জেদ্দা-লজ্জার পরও কীভাবে চাকরি টিকে থাকে স্প্যানিশ কোচের!
স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমের যা খবর, তাতে জুন পর্যন্ত টিকে যাচ্ছেন ভালভার্দে। আর এখানেই প্রশ্ন উঠে যায় সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউয়ের ক্লাব পরিচালনার সামর্থ্যের ওপর। হ্যাঁ, ভালভার্দে ২০১৭ সালে দায়িত্ব নেওয়ার পর টানা দুটি লিগ জিতিয়েছেন, কিন্তু ওই দুই মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে যে দুটি দুঃস্বপ্নের রাত উপহার দিয়েছেন, এখনও তা যন্ত্রণা দেয় বার্সা ভক্তদের।
রোমা কিংবা লিভারপুলের মতো না হলেও জেদ্দায় যা হয়েছে, সেটি নিয়েও তো ব্যাখ্যা দেওয়া যায় না। স্প্যানিশ সুপার কাপে এল ক্লাসিকোর জোর সম্ভাবনা উঁকি দিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ ফাইনাল নিশ্চিত করায়। চলতি মৌসুমে পুনঃনির্মাণে থাকা আতলেতিকো-বাধা পেরিয়ে ফাইনালে উঠবে, এই বাজির পাল্লাই ছিল ভারি। শুরুতে পিছিয়ে পড়ার ধাক্কা কাটিয়ে ভালভার্দের দল ঠিকই এগিয়ে যায়, কিন্তু শেষের ধাক্কায় বার্সেলোনা ৩-২ গোলে হেরে ছিটকে যায় প্রথমবার স্পেনের বাইরে নতুন ফরম্যাটে হওয়া স্প্যানিশ সুপার কাপ থেকে।
নির্মম পরিণতি মানতে পারছেন না বার্সেলোনা সমর্থকেরা। ‘ভালভার্দে হটাও’- স্লোগান উঠতেও সময় লাগেনি। যে কোচ মেসি-সুয়ারেজ-গ্রিজমানদের মতো খেলোয়াড়দের নিয়ে এগিয়ে গিয়েও জিততে পারেন না, তাকে নিয়ে কথা ওঠাটা স্বাভাবিক। তিনি নিজেও কিন্তু সব বুঝছেন। তাই বরখাস্তের আলোচনায় বিস্ময় যেমন নেই, তেমনি বিচলিতও নন। নিজের ভবিষ্যৎ প্রশ্নে ভালভার্দের স্বীকারোক্তি, ‘কোচ সবসময় পরিকল্পনা নিয়ে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে এগিয়ে চলে, প্রতিটি ম্যাচেই নিজের সেরাটা দেয়। আমরা সবাই জানি, ফুটবলে কোনোকিছু স্থায়ী নয়। খারাপ ফল হলে কথা উঠবেই, যেমন আজ রাতে (বৃহস্পতিবার)। এটা (বরখাস্তের কথা) উঠবেই, তবে আমি উদ্বিগ্ন নই।’
তা না হওয়ারই কথা! রোমা ও লিভারপুল কাণ্ডের পরও যখন চাকরি টিকে গেছে, তখন চুক্তির মেয়াদ শেষের কয়েক মাস আগে দুশ্চিন্তা আসার কথা নয় তার। তা ছাড়া বোর্ড সভাপতি বার্তোমেউয়ের আশীর্বাদ তো আছেই তার মাথায়। ২০১৭-১৮ মৌসুমে ঘরের মাঠে ৪-১ গোলে জেতার পরও চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বিদায় নিতে হয়েছিল রোমার মাঠে ৩-০ গোলে হেরে। পরের মৌসুমের যন্ত্রণাটা আরও বেশি। সেবার ৩-০ গোলের লিড নিয়ে লিভারপুলের মাঠে গিয়ে অবিশ্বাস্য ৪-০ গোলের হারে সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে পড়ে। ওই দুটি হার এখনও শেল হলে বিঁধে আছে বার্সা-ভক্তদের মনে। অথচ ভালভার্দের প্রতি বার্তোমেউয়ের আস্থাটা একইরকম আছে।
স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমে শোনা যাচ্ছে, সোমবার বৈঠক ডেকেছে বার্সেলোনা কর্তৃপক্ষ। ধারণা করা হচ্ছে, কোচের বিষয়ে আলোচনা হবে। অনেক পরিচালক ভালভার্দেকে ছাঁটাইয়ের পক্ষে থাকলেও মৌসুমের শেষ পর্যন্ত টিকে যাবেন স্প্যানিশ কোচ। এর কারণ হতে পারে, বার্সেলোনার ছাঁটাই না করার পলিসি কিংবা বার্তোমেউয়ের চাহিদা।
মৌসুমের মাঝপথে নতুন কোচ খুঁজে পাওয়াটাও মুশকিল। অনেকদিন হলো ভালভার্দের চাকরি হারানোর গুঞ্জন উঠলেও তার চেয়ারে বসতে একমাত্র রোনাল্ড কোম্যানের নাম শোনা গেছে। এই ডাচ কোচও তার ভবিষ্যৎ ঠিক করতে চান ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে নেদারল্যান্ডসকে দেখে। যুবদলের কোচ জাভিয়ের গার্সিয়া আছেন, কিন্তু মূল দলে এত তারকার ভিড় তিনি সামলাতে পারবেন কিনা, সেই সংশয় থেকেই যায়।
কাতালান ডার্বিতে এসপানিওলের মাঠে ড্র কিংবা জেদ্দায় আতলেতিকোর বিপক্ষে লজ্জা- চলতি মৌসুমে ব্যর্থতার গল্প চলতে থাকলেও নিশ্চিন্ত থাকতেই পারেন ভালভার্দে। তবে মৌসুম শেষে বার্সেলোনায় টিকে থাকা তার জন্য বড্ড কঠিনই। একে চুক্তির মেয়াদ শেষ হচ্ছে তার, এর ওপর রয়েছে বার্তোমেউ সভাপতির চেয়ার ধরে থাকার লড়াই।
পুনরায় ক্লাব প্রধান হতে চাইলে বার্তোমেউয়ের লাগবে সাফল্য। ভালভার্দেকে দিয়ে লিগ সাফল্য এলেও ইউরোপে ডাহা ফেল। বার্সেলোনার সমর্থক ও বোর্ড পরিচালকদের একটা অংশ কোচের ওপর যেভাবে খেপেছেন, এবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতলেও হয়তো মন গলবে না তাদের। এমন একজন কোচের ওপর আস্থার হাত রেখে নির্বাচনে হারের পথ নিশ্চয়ই গড়বেন না বার্তোমেউ। ফুটবল আঙিনা সত্যিই বিচিত্র!