বাল্যবিয়ে রোধে কাজ করায় সেরা স্বর্ণ কিশোরী হলেন গোমস্তাপুরের বুশরা

আপডেট: জানুয়ারি ১২, ২০১৭, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

গোমস্তাপুর প্রতিনিধি



বাল্যবিয়ে রোধে সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করায় সেরা স্বর্ণ কিশোরীর পুরস্কার পেলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে উপজেলার রহনপুর রাবেয়া বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী তাহমিনা হক বুশরা।
গত ২৪ ডিসেম্বর চ্যানেল আই এ প্রচারিত একটি অনুষ্ঠানে তাকে দেশসেরা স্বর্ণ কিশোরীর পুরস্কার দেয়া হয়। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের স্বর্ণ কিশোরী নেটওয়ার্ক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঢাকার ধানমন্ডি সুলতানা কামাল মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সে আয়োজিত সারাদেশ থেকে অংশ নেয়া স্বর্ণ কিশোরীদের মধ্যে বুশরা সেরা স্বর্ণ কিশোরী নির্বাচিত হয়। অনুষ্ঠানে অতিথিরা তার হাতে ৬টি পুরস্কার তুলে দেন। পুরস্কার পেয়ে সে নিজেকে গর্বিত মনে করছে এবং এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারণ সহযোগিতা পেলে  এলাকাকে শতভাগ বাল্যবিবাহ মুক্ত করতে কাজ করে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে।
রহনপুর রাবেয়া বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের ১০ম শ্রেণির এ ছাত্রীর পিতা একই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নাজমুল হক ও গৃহিনী মরিয়ম রিনির দম্পতির একমাত্র কন্যা সন্তান। তার মেয়ে পুরস্কার পাওয়ায় পিতা নাজমুল হক নিজেকে খুব গর্বিত মনে করেন। তিনি জানান, তার মেয়ের এ প্রাপ্তি রাজশাহী বিভাগসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ও গোমস্তাপুর উপজেলার সকলের গর্বের বিষয়। ইতিমধ্যে জেলা সদর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সে সংবর্ধিত হয়েছে।
পুরস্কারপ্রাপ্ত বুশরা জানান, তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২০ সদস্যের একটি স্বর্ণ কিশোরী ক্লাব রয়েছে। যার সদস্যরা সপ্তাহের ২ দিন নিজ নিজ শ্রেণি কক্ষে বাল্যবিয়ের কুফল সম্পর্কে সহপাঠিদের ধারণা দিয়ে থাকে। এরই অংশ হিসেবে প্রধান শিক্ষক কাওসার আলীর সহযোগিতায় বিদ্যালয়ের প্রতিনিধি হিসেবে ঢাকার স্বর্ণ কিশোরী সমাবেশে অংশগ্রহণ করে। তার পুরস্কারের মধ্যে রয়েছে একটি স্বর্নের মেডেল, সনদপত্র, দেশি ও বিদেশি শিক্ষা বৃত্তিসহ নানা পুরস্কার। সে ভবিষ্যতে দেশে বাল্যবিয়ে রোধে কাজ করে যাওয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ