বিএনপি দিয়ে রাষ্ট্র চলবে না : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০২২, ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি :


বিএনপি দিয়ে রাষ্ট্র চলবে না। তারা মিথ্যাচার আর দূর্নীতি কিভাবে করতে হয়, সেটাতে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেছে। দূর্নীতির কারনে দলীয় প্রধানসহ তাদের দলের বড় বড় নেতারা আইনিভাবে সাজাপ্রাপ্ত হয়েছে। এরমধ্যে অনেকেই মুচলেকা দিয়ে দেশ ত্যাগ করে সরকাররের বিরুদ্ধে যড়যন্ত্র করছে। সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করার কারনে জনগণ তাদের আজ প্রত্যাখান করেছে।

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের গোকুলপুর ঘাটে বাঘা ও চারঘাটের পদ্মা নদীর বামতীরের স্থাপনাসহ নদী ভাঙ্গন হতে রক্ষা প্রকল্পের ড্রেজিং কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি এ কথা বলেছেন।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী প্রকল্পের বিভিন্ন দিক ঘুরে দেখেন এবং কাজ দেখে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেন। কাজের মান তদারকির জন্য একটি সমন্বিত কমিটি কাজ করে যাচ্ছে। বাঁধ নির্মাণ সম্পন্ন হলে পানির প্রবাহ ঠিক থাকবে এবং কৃষকরা সেচ কাজে পানি ব্যবহার করতে পারবে। এ অঞ্চলের কৃষকরা কৃষি ও মৎস্য চাষে আরো উৎসাহিত হবেন।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি ২০০৮ সালে এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এ এলাকার মানুষকে কিভাবে পদ্মার ভাঙন থেকে বাঁচানো যায়, সেই চিন্তা থেকে কাজ করেছি। সেই লক্ষ্যে ২০২০ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) এক সভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় পদ্মায় বাঁধ নির্মাণ কাজ প্রকল্পটি অনুমোদন হয়। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়ন করে যাচ্ছেন, এই বাঁধ এলাকায় চীরজীবন সাক্ষি হয়ে থাকবে।

রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের আয়োজনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নির্বাহী প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম শেখ। উপজেলা আওয়ামলী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহেদ সাদিক কবীরের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আখতার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, বাঘা থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন, জাতীয় পার্টির নেতা শামসুদ্দিন রিন্টু, পাকুড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক আবদুর রহমান, যুগ্ম আহবায়ক সামিউল হাসান নয়ন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, উপজেলায় ২৮ কিলোমিটার পদ্মানদী রয়েছে। এই পদ্মা নদীর বাম তীরের স্থাপনাসমূহ ভাঙন হতে রক্ষার জন্য ৭২২ কোটি ২৪ লাখ টাকার প্রকল্প অনুমোদন হয়। প্রকল্প অনুমোদনের পর উপজেলার মীরগঞ্জ ও গোকুলপুর এবং চারঘাট উপজেলার ইউসুফপুর ও রাওথা এলাকায় ৪.৩ কিলোমিটার নদীতীর প্রতিরক্ষা এবং উপজেলার আলাইপুর এলাকায় এক কিলোমিটার বিকল্প বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণ, ৮০০ মিটার নদীতীর প্রতিরক্ষা পুনর্বাসনের ৭০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এদিকে আলাইপুর থেকে চকরাজাপুর পর্যন্ত ১২.১ কিলোমিটার পদ্মা নদীর ড্রেজিং কাজের উদ্বোধন করা হয়।