বিক্ষোভে উত্তাল কিরগিজস্তান, পার্লামেন্টে ভাঙচুর

আপডেট: October 6, 2020, 1:50 pm

সোনার দেশ ডেস্ক:


নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগে তা বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন মধ্য-এশিয়ার দেশ কিরগিজস্তানের হাজার হাজার মানুষ। সোমবারের এই বিক্ষোভ থেকে দেশটির পার্লামেন্ট ভবনে ভাঙচুর ও কিছু অংশে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। দুর্নীতির দায়ে রাজধানী বিশকেকে বন্দি দেশটির বিরোধীদলীয় নেতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট আলমাজবেক আতামবায়েভকে মুক্ত করেছেন তারা।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভের ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, বর্তমান প্রেসিডেন্ট সুনোরবাই জিনবেকোভের কার্যালয়ে ঢুকে পড়েছেন বিক্ষোভকারীরা। তারা প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের কাগজপত্র জানালা দিয়ে বাইরে ছুড়ে ফেলছেন। ভবনের কিছু অংশে আগুন জ্বলতেও দেখা যায়।
বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ লাঠিচার্জ, টিয়ার গ্যাস ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন বিক্ষোভকারীরা।
গত রোববার দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ভোট জালিয়াতির মাধ্যমে ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট সুনোরবাই জিনবেকোভ আবারও জয়ী হয়েছেন বলে অভিযোগ এনে নির্বাচন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন বিরোধীরা।
দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে অন্তত একজন নিহত ও আরও ৬০০ জন আহত হয়েছেন। প্রেসিডেন্ট সুনোরবাই দেশটিতে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। ক্ষমতা অবৈধভাবে দখলে দেশটির নির্দিষ্ট রাজনৈতিক শক্তি চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।
বিক্ষোভের পর দেশটির বিরোধী দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রেসিডেন্ট সুনোরবাই। প্রয়োজনে নির্বাচনী ফল বাতিল করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।
এবারের নির্বাচনে ১৬ টি রাজনৈতিক দলের মধ্যে মাত্র চারটি পার্লামেন্টে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে। এই চারটি দলের মধ্যে অন্তত তিনটির সঙ্গে প্রেসিডেন্ট সুনোরবাইয়ের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে।
সোমবার বিশকেকের আলা-তু স্কয়ারে জড়ো হওয়া হাজার হাজার বিক্ষোভকারীকে ছত্রভঙ্গ করতে স্টান গ্রেনেড, টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে পুলিশ। পরবর্তীতে আরও বিপুলসংখ্যক বিক্ষোভকারী সেন্ট্রাল স্কয়ারে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। সেখান থেকে পার্লামেন্ট ভবনের দিকে যান তারা। এ সময় তাদের অনেকে হোয়াইট হাউস নামে পরিচিত কিরগিজস্তানের পার্লামেন্টে ঢুকে ভাঙচুর চালান।
সূত্র: বিবিসি, এএফপি, জাগোনিউজ