বিদেশি নাগরিকত্ব গ্রহণের শীর্ষে ভারত

আপডেট: জুলাই ১, ২০১৭, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বিদেশি নাগরিকত্ব পাওয়ার নিরিখে শীর্ষে ভারতীয় বংশোদ্ভূতরা। কর্মসূত্রে যে সমস্ত প্রবাসী ভারতীয় বাইরে রয়েছেন, ২০১৫ সালে তাঁদের মধ্যে ১ লক্ষ ৩০ হাজার মানুষ অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থার (ওইসিডি) সদস্য দেশগুলিতে স্বাভাবিক নাগরিকত্ব পেয়েছেন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মেক্সিকো। ২০১৫ সালে ১ লক্ষ ১২ হাজার মেক্সিকো বংশোদ্ভূত অন্য দেশের নাগরিকত্ব পেয়েছেন। তৃতীয় স্থানে ফিলিপিন্স। ৯৪,০০০ ফিলিপিনো অন্য দেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন। পঞ্চম স্থানে রয়েছে চিন। ২০১৫ সালে ৭৮,০০০ চিনা বংশোদ্ভূত অন্য দেশের নাগরিকত্ব নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার প্যারিসে ‘ইন্টারন্যাশনাল মাইগ্রেশন আউটলুক (২০১৭)’ রিপোর্ট প্রকাশ করেছে ওসিইডি। সেখান থেকেই এই হিসেব মিলেছে। বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে ওইসিডি-র সদস্য প্রত্যেক দেশগুলিতে নাগরিকত্ব পেয়েছেন প্রায় ২০ লক্ষের বেশি মানুষ। ২০১৪ সালের তুলনায় যা ৩% বেশি। তবে গত ১০ বছরের গড় হিসেব পেরোয়নি। ওইসিডি একটি আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক উপদেষ্টা সংগঠন। এর অধীনে মোট ৩৫টি দেশ রয়েছে। ইউরোপীয় দেশগুলি সহ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং জাপানও এই সংগঠনের সদস্য। এর আগেও ওইসিডির একটি রিপোর্টে শীর্ষস্থানে ছিল ভারত। সেবার ১৫৬ লক্ষ প্রবাসী ভারতীয় বিশ্বের নানা দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছেন বলে জানা গিয়েছিল। ওইসিডির সাধারণ সচিব এঞ্জেল গুড়িয়া বলেছেন, ‘অভিবাসী, তাঁদের সন্তান এবং শরণার্থীদের ঐক্যবদ্ধ করা প্রয়োজন। যাতে তাঁদের আরও সমৃদ্ধশালী ভবিষ্যৎ প্রদান করা যায়।’ ওইসিডি নথিভুক্ত দেশগুলিতে নতুন অভিবাসী প্রবেশের নিরিখে শীর্ষে রয়েছে চিন। তবে বর্তমানে সিরিয়া থেকে আসা শরণার্থীর সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি। যে কারণে ভারত পঞ্চম স্থানে নেমে গিয়েছে। তবে শুধুমাত্র উন্নত জীবনযাত্রা বা কর্মসংস্থান নয়, প্রতিকূল অবস্থার সম্মুখিন হয়েই ২০১৫ সালে সবথেকে বেশি মানুষ দেশ ছেড়েছেন। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, নতুন ওইসিডি নথিভুক্ত দেশগুলি থেকে ২০১৫ সালে মোট ৭০ লক্ষ ৩৯ হাজার অভিবাসী এসেছে। যার মধ্যে ৭.৮% চিনা বংশোদ্ভূত। ২০১৩ সালে প্রতি ১০ অভিবাসীর মধ্যে একজন চিনা বংশোদ্ভূত ছিলেন। ভারতের ক্ষেত্রে অভিবাসীর হার কমেছে। ২০১৩ সালে ওইসিডি নথিভুক্ত দেশগুলিতে ভিড় জমানো অভিবাসীর মধ্যে ৪.৪% ভারতীয় ছিলেন। ২০১৫ সালে তা কমে ৩.৯%–এ দাঁড়ায়। মোট হিসেবে ২০১৫ সালে ২ লক্ষ ৬৮ হাজার ভারতীয় দেশ ছেড়েছেন। ২০১৩ সালে সংখ্যাটা ২ লক্ষ ৪০ হাজার ছিল। গন্তব্যস্থল হিসেবে অভিবাসীদের পছন্দ তালিকার শীর্ষে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া এবং জার্মানি। সেখানে পাঠরত বিদেশি পড়ুয়াদের মধ্যে ভারতীয় এবং চিনা বংশোদ্ভূতদেরই আধিপত্য। ওইসিডি নথিভুক্ত দেশগুলিতে পাঠরত মোট পড়ুয়ার অর্ধেকই এশীয়। যার মধ্যে ৪০ শতাংশই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাঠরত। ২০১৪ সালে ওইসিডি নথিভুক্ত দেশগুলিতে মোট চিনা পড়ুয়ার সংখ্যা ছিল ৬ লক্ষ। ভারতীয় পড়ুয়ার সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ৮৬ হাজার। ২০১৩-র তুলনায় যা ১৩% বেশি।
তথ্যসূত্র: আজকালি

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ